ইরানে তৎপর ইউরোপীয় কোম্পানিগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে: জার্মানি

ইরানে তৎপর ইউরোপীয় কোম্পানিগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে: জার্মানি

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো ম্যাস বলেছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের সঙ্গে ব্যবসা করতে ইচ্ছুক সেদেশের কোম্পানিগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেবে সরকার।

আবনা ডেস্কঃ ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখা এবং ইরানের সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক ধরে রাখার জন্য ইউরোপ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো ম্যাস বলেছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের সঙ্গে ব্যবসা করতে ইচ্ছুক সেদেশের কোম্পানিগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেবে সরকার। ইরানের সঙ্গে ব্যবসা করতে ইচ্ছুক কোম্পানিগুলোকে বিমা সুবিধা দেয়া ও আর্থিক লেনদেনের সুযোগ করে দেয়াসহ সার্বিক সহায়তা দেয়ার কথা উল্লেখ করে জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেছেন, আমেরিকার ওপর নির্ভরশীল না থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ব্যবসায়ীদের অর্থ লেনদেনের জন্য স্বাধীন ও বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।
জার্মানি এমন সময় ইরানের সঙ্গে ব্যবসা করতে ইচ্ছুক কোম্পানিগুলোকে পৃষ্ঠপোষকতা দেয়ার কথা জানাল যখন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনও বলেছেন, জার্মানি, ব্রিটেনসহ ইউরোপের সব দেশ পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখতে আগ্রহী। ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান ফেডেরিকা মোগেরিনি এ ব্যাপারে বলেছেন, "আমরা সারা বিশ্বে আমাদের শরীক দেশগুলোর সঙ্গে এমনভাবে সমন্বয় গড়ে তুলব যাতে ইরানের সঙ্গে সবার ব্যবসা বজায় থাকে। কারণ সারা বিশ্বের নিরাপত্তার জন্য পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখা জরুরি।"
প্রায় এক মাস আগে আমেরিকা ইরানের বিরুদ্ধে প্রথম দফা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও ইউরোপীয় দেশগুলো ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখার ওপর জোর দিয়েছে এবং পরমাণু সমঝোতার আওতায় ইরানের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক রক্ষার চেষ্টা চালাচ্ছে। ইরানের কর্মকর্তারাও পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার পাশাপাশি ইরানের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদারের জন্য ইউরোপের কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পরপরই ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানি ইরানের প্রতি সমর্থন জানায় এবং মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ইরানের সঙ্গে বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সহযোগিতা বজায় রাখার জন্য এরই মধ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। তবে পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ইউরোপীয় কর্মকর্তারা ইরানের সঙ্গে ব্যবসায়ীক সম্পর্ক বজায় রাখার কথা বললেও এবং পরমাণু সমঝোতার বিষয়ে ইরানের প্রতি সমর্থন দিলেও ইউরোপের বেশ কয়েকটি বড় বড় কোম্পানি ইরানে তাদের কাজ গুটিয়ে নিয়েছে। এর ফলে ইউরোপের সঙ্গে ইরানের সম্পর্কের ভবিষ্যৎ অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বলে অনেকে মনে করছেন।
এ ব্যাপারে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি বলেছেন, ইউরোপীয়রা পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার পাশাপাশি ইরানের অর্থনীতি যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে চেষ্টা করছে। কিন্তু তাদের এ চেষ্টা অত্যন্ত ধীরগতির।
যাইহোক, এতে কোনো সন্দেহ নেই ইউরোপীয়রা যদি ইরানের ব্যাপারে তাদের প্রতিশ্রুতি পালন না করে তাহলে তেহরান বিকল্প ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে।#


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

Mourining of Imam Hossein
Pesan Haji 2018 Ayatullah Al-Udzma Sayid Ali Khamenei
We are All Zakzaky