আয়াতুল্লাহ ঈসা কাসেমকে উন্নত চিকিৎসা প্রদানের জোর দাবী মাজমার

  • News Code : 869980
  • Source : ABNA
Brief

আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতি প্রদান করে আয়াতুল্লাহ শাইখ ঈসা কাসেমকে উন্নত চিকিৎসা প্রদানের জোর দাবী জানিয়েছে আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): বিবৃতি প্রদান করে আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা (মাজমা)-এর উচ্চতর পরিষদের সদস্য আয়াতুল্লাহ শাইখ ঈসা কাসেমের শারীরীক অবস্থার অবনতির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক এ সংস্থা।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দুঃখজনকভাবে বাহরাইনের প্রখ্যাত আলেম, এদেশের জনগণের আধ্যাত্মিক নেতা এবং আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা (মাজমা)-এর উচ্চতর পরিষদের সদস্য ‘আয়াতুল্লাহ শাইখ ঈসা আহমাদ কাসেমে’র শারীরীক অবস্থা চরম অবনতির দিকে।

অন্যায়ভাবে কয়েক মাস যাবত গৃহবন্দী করে রাখা বাহরাইনের এ জনপ্রিয় ও আধ্যাত্মিক নেতার শারীরীক অবস্থা দিন দিন আরো গুরুতর রূপ নিচ্ছে। তার সুচিকিৎসার জন্য অভিজ্ঞ ও দক্ষ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে উন্নত চিকিৎসা সেবা প্রয়োজন।

ধর্মীয় এ নেতার আত্মীয় স্বজনদের ভাষ্যমতে, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস এবং বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত থাকার পাশাপাশি তার শরীরের ওজন কমে অর্ধেকে নেমে এসেছে এবং পরিপাকতন্ত্রেও ইনফেকশন দেখা দিয়েছে।

গৃহবন্দী থাকার কারণে এবং বাড়িতে পর্যাপ্ত চিকিৎসা সামগ্রী না থাকায় তাঁর চিকিৎসক তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিতে ব্যর্থ হচ্ছেন। এ পরিস্থিতিতে কয়েকটি অভিজ্ঞ ও দক্ষ মেডিকেল টিমের তত্ত্বাবধানে তার কয়েকটি অপারেশন প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন বাহরাইনি এ নেতার ব্যক্তিগত চিকিৎসক।

বাহরাইনের স্বৈরাচারী সরকারের পক্ষ থেকে প্রেরিত চিকিৎসকদের প্রতি আস্থা নেই আয়াতুল্লাহ্ ঈসা কাসেমের পরিবারের।

আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা হিসেবে -১২০টি দেশের প্রতিভাবান ব্যক্তিরা যার সদস্য- নিচের কয়েকটি বিষয়ের প্রতি জাতিসংঘ, ইসলামি সমন্বয় সংস্থা, মানবাধিকার কমিশন, এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ ডক্টরস উইথআউট বোর্ডার এবং বিশ্বের স্বাধীন রাষ্ট্রগুলোর সরকার প্রধান ও পার্লামেন্টের মনোযোগ আকর্ষণ করছে।

(১) বার্ধক্যজনিত ও অসুস্থতার কারণে এ ধরনের রোগ সহ্য করার ক্ষমতা নেই রুগ্ন আয়াতুল্লাহ শাইখ ঈসা কাসেমের। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে প্রখ্যাত ধর্মীয় ও আধ্যাত্মিক এ ব্যক্তিত্বের জীবন সংকটের মুখে পড়তে পারে।

(২) মানুষকে প্রয়োজনীয় ঔষধ ও চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত করা, মানবাধিকার লঙ্ঘন বলে বিবেচিত।

(৩) আলে খলিফা সরকার প্রায় ৭ বছর যাবত বিভিন্নভাবে বাহরাইনের জনগণের অধিকারকে পদদলিত করে আসছে। অসুস্থ ব্যক্তিদের চিকিৎসা সেবার জন্য পর্যাপ্ত স্থানের ব্যবস্থা না করে তাদের মানবাধিকার লঙ্ঘনের কলঙ্কিত ইতিহাসের অধ্যায়ে আরো একটি পাতা সংযুক্ত করেছে স্বৈরাচারী এ সরকার।

(৪) আমরা আন্তর্জাতিক একটি সংস্থা হিসেবে, অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর পক্ষ থেকে আয়াতুল্লাহ শাইখ ঈসা কাসেমের চিকিৎসার জন্য একটি দক্ষ মেডিকেল টিম প্রেরণের দাবী জানাচ্ছি।

(৫) একইভাবে আয়াতুল্লাহ শাইখ ঈসা কাসেমের নাগরিকত্ব বাতিল সংক্রান্ত নির্দেশ প্রত্যাহার এবং তাকে গৃহবন্দীত্ব থেকে মুক্তি দানের লক্ষ্যে বাহরাইন সরকারের উপর চাপ সৃষ্টির জন্য মানবাধিকার অঙ্গনে সোচ্চার সংস্থাগুলোর প্রতি আহবান জানাই।

(৬) নিঃসন্দেহে, যেকোন প্রকার অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য প্রথমে বাহরাইন সরকার এরপর এ বিষয়ে নিরবতা অবলম্বনকারী সংস্থাগুলো দায়ী থাকবে।

প্রসঙ্গত, আয়াতুল্লাহ শাইখ ঈসা কাসেম গৃহবন্দী হওয়ার পর থেকে দিনের পর দিন তার শারীরীক অবস্থা অবনতির দিকে। এমন পরিস্থিতিতে তার জন্য উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা না করা হলে তার জীবন হুমকির মুখে পড়তে পারে বলে জানিয়েছেন তার ঘনিষ্ট সূত্র।#


সম্পর্কিত প্রবন্ধসমূহ

আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

پیام امام خامنه ای به مسلمانان جهان به مناسبت حج 2016
We are All Zakzaky
telegram