ইরান তেল বিক্রি করতে না পারলে কেউই পারবে না: রুহানির পাল্টা হুমকি

ইরান তেল বিক্রি করতে না পারলে কেউই পারবে না: রুহানির পাল্টা হুমকি

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, "আমরা স্পষ্ট বলতে চাই বর্তমান যুগে আর্থ-রাজনৈতিক, নিরাপত্তা, জ্ঞান-বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, পরিবেশ সুরক্ষা প্রভৃতি ক্ষেত্রে একভাবে কোনো সমস্যার সমাধান করা সম্ভব নয়।"

আবনা ডেস্কঃ ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেছেন, তার দেশের জনগণ কখনই বলদর্পী শক্তিগুলোর কাছে আত্মসমর্পণ করবে না এবং ইতিহাস সাক্ষী ইরানি জাতি সবসময়ই আগ্রাসী শক্তিকে পরাস্ত করেছে। অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় একদল প্রবাসী ইরানিদের সমাবেশে প্রেসিডেন্ট রুহানি এ কথা বলেন।
এর আগে সুইজারল্যান্ডের রাজধানী বার্ন শহরে ইরান-সুইস যৌথ অর্থনৈতিক কমিশনের বৈঠকে ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, "আমরা স্পষ্ট বলতে চাই বর্তমান যুগে আর্থ-রাজনৈতিক, নিরাপত্তা, জ্ঞান-বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, পরিবেশ সুরক্ষা প্রভৃতি ক্ষেত্রে একভাবে কোনো সমস্যার সমাধান করা সম্ভব নয়।" তিনি বলেন, "মার্কিনীরা দাবি করছেন তারা বিশ্ব থেকে ইরানকে বিচ্ছিন্ন করতে চান। কিন্তু তাদের এ উদ্দেশ্য কখনোই পূরণ হবে না এবং কেবল মার্কিনীরাই বিশ্বের একচ্ছত্র ক্ষমতার অধিকারী নন।"
বাস্তবতা হচ্ছে, বর্তমান বিশ্ব ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞাহুমকি বাস্তবায়নের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে এবং সারা বিশ্বে এ নিষেধাজ্ঞার কি প্রভাব পড়তে পারে সে সম্পর্কে সবারই সচেতন থাকা উচিত। ইরানের প্রেসিডেন্ট প্রথমে সুইজারল্যান্ড এরপর অস্ট্রিয়ার কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হুমকির অর্থপূর্ণ জবাব দিয়েছেন। গত সোমবার সুইজারল্যান্ড সফরে গিয়ে প্রবাসী ইরানিদের এক সমাবেশে প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেছেন, "আমেরিকার এক কর্মকর্তা হুমকি দিয়েছেন ইরানকে আমরা একফোঁটা তেলও বিক্রি করতে দেব না।" তিনি বলেন, "ইরানের তেল বিক্রি বন্ধের হুমকি দেয়ার অর্থ হচ্ছে এই এলাকার কোনো দেশই তেল বিক্রি করতে পারবে না।" প্রেসিডেন্ট রুহানি প্রশ্ন করেন, "এ অঞ্চলের সব দেশ তেল রপ্তানি করবে আর ইরান তেল রপ্তানি করতে পারবে না এটা কি গ্রহণযোগ্য?" তিনি বলেন, "ইরানের এক ফোটা তেলও বিক্রি করতে দেয়া হবে না বলে আমেরিকা যে হুমকি দিয়েছে সাহস থাকলে তা বাস্তবায়ন করে দেখাক তাহলে এর পরিণতি তারা ভালোভাবেই বুঝতে পারবে।"
মার্কিন কর্মকর্তারা ইরানের তেল বিক্রি বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিচ্ছেন অথচ ইরানের নাকের ডগার উপর দিয়ে হরমুজগান প্রণালী বয়ে গেছে যা কিনা আর্থ-রাজনৈতিক ও ভৌগোলিক দিক দিয়ে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং এই প্রণালী বিশ্বে জ্বালানি সরবরাহের অন্যতম বৃহৎ রুট হিসেবে পরিচিতি। তাই মার্কিন হুমকি সারা বিশ্বকেই হুমকির মুখে ঠেলে দিতে পারে।
মার্কিন হুমকির জবাবে ইরানের প্রেসিডেন্টের পাল্টা হুমকির ব্যাপারে বার্তা সংস্থা রয়টার্স লিখেছে, "আমেরিকা ইরানের তেল বিক্রি করা বন্ধ করে দিলে এ অঞ্চলের তেল সমৃদ্ধ অন্য দেশের তেল বিক্রির ওপরও নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।" ইরানকে একফোটা তেল বিক্রি করতে না দেয়ার হুমকি সম্পর্কে ইরানের সাবেক সংসদ সদস্য এবং আন্তর্জাতিক বিষয়ক বিশ্লেষক নৌযের শাফিঈ বলেছেন, "ইরানের হাতেও পর্যাপ্ত ক্ষমতা রয়েছে এবং সময়মতো তা দেখানো হবে।" অন্যদিকে ইরানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, আমেরিকা তার হুমকি বাস্তবায়ন করলে ইউরোপকে লাখ লাখ শরণার্থীর ধাক্কা সামলাতে হবে। কারণ ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা সারা বিশ্বের নিরাপত্তা ও অর্থনীতিকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

conference-abu-talib
We are All Zakzaky