ইরাকি সেনা কর্তৃক শিশুর শরীর থেকে আত্মঘাতী বোমা অপসারণ

৭ বছর বয়সী আতঙ্কিত এক শিশুর শরীর থেকে একটি আত্মঘাতী বেল্ট অপসারণের ভিডিও প্রকাশ করেছে ইরাক সেনাবাহিনী।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): দায়েশ সন্ত্রাসীরা ৭ বছর বয়সী এক শিশুর শরীরে আত্মঘাতী একটি বেল্ট বেঁধে দেয়। জনৈক ইরাকি সৈন্য কর্তৃক বেল্টটি অপসারণের ভিডিও প্রকাশ করেছে ইরাকি সেনাবাহিনী।

ঐ ভিডিওতে দেখা গেছে ইরাকের মোসুলের একজন সাহসী যোদ্ধা ভয়ে কাঁপতে থাকা এক শিশুর শরীর থেকে আত্মঘাতী বেল্ট অপসারণ করছেন। এ সময় ঐ সৈন্য শিশুটিকে বারবার শান্ত থাকতে বলছেন।

সৈন্যটি শিশুটিকে তার হাত উপরে রাখতে বলে তার কোমরের চতুর্পাশে পেঁচানো এক্সপ্লোসিভ বেল্টটি খুলতে থাকেন।

এ সময় আতঙ্কিত শিশুটি বলতে থাকে : না চাচ্চু, না।

সৈন্যটি তার জবাবে বলেন: ‘চিন্তা করো না, আমি তোমার কোন ক্ষতি করব না’।

এরপর তিনি শিশুটি এবং আশেপাশে থাকা আরও বহু লোকের কোনরূপ ক্ষয়ক্ষতি হওয়া ছাড়াই এক্সপ্লোসিভের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন।

সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশ ৭ বছরের ঐ শিশুটির শরীরে আত্মঘাতী বোমাটি লাগিয়ে দেয়। মসুল থেকে পলায়নের পর ইরাকি সৈন্যরা শিশুটির শরীরে থাকা বোমাটি নিষ্ক্রীয় করে।

ঐ এক্সপ্লোসিভ বেল্ট অপসারণ এবং অত্যন্ত নিপুনভাবে শিশুটি থেকে দূরে মাটিতে বোমাটি রাখার মাধ্যমে ভিডিও ক্লিপটি শেষ হয়।

ধারণা করা হচ্ছে যে, ছেলেটিকে শরণার্থীদের একটি গ্রুপের সাথে পাওয়া গেছে। সেএকা দাঁড়িয়ে নিজের পেটে খামচি দিচ্ছিল এ সময় সৈন্যরা তাকে দেখতে পায়।#


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

پیام امام خامنه ای به مسلمانان جهان به مناسبت حج 2016
We are All Zakzaky