'ইরানই কাতারের ওষুধ ও খাদ্য চাহিদা পূরণ করছে'

'ইরানই কাতারের ওষুধ ও খাদ্য চাহিদা পূরণ করছে'

কাতারের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী খালেদ বিন মোহাম্মাদ আল আতিয়া বলেছেন, অবরোধ আরোপের পর ইরানের আকাশই প্রথম কাতারের জন্য শ্বাস-প্রশ্বাসের সুযোগ করে দিয়েছিল।

আবনা ডেস্কঃ সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো অবরোধ আরোপ করার পর থেকেই ইরানের মাধ্যমে ওষুধ ও খাদ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ বিন আব্দুর রহমান আলে সানি। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে ‘আমেরিকান এন্টারপ্রাইজ’-এ তিনি এক বক্তৃতায় তিনি বলেন, একমাত্র ইরানের মাধ্যমেই তাদের ওষুধ ও খাদ্য চাহিদা পূরণ হচ্ছে।
এ সময় উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদ বা পিজিসিসি ও যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন যৌথ বৈঠকে কাতার অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত রয়েছে বলেও তিনি জানান।
এদিকে কাতারের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী খালেদ বিন মোহাম্মাদ আল আতিয়া বলেছেন, কাতারের ওপর সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো যে অবরোধ আরোপ করেছে তা চরম নিষ্ঠুরতা। তিনি বলেন, অবরোধ আরোপ করার পর ইরানের আকাশই প্রথম কাতারের জন্য শ্বাস-প্রশ্বাসের সুযোগ করে দিয়েছিল।
২০১৭ সালের ৫ জুন সৌদি আরব, মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে এবং স্থল, পানি ও আকাশপথে অবরোধ আরোপ করে। ১৩ দফা দাবি মানলেই কেবল কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা হবে বলে জানিয়েছে ওই চার দেশ।
তাদের শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে, ইরান ও লেবাননের হিজবুল্লাহর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে এবং আল-জাজিরা টিভি চ্যানেল ও তুর্কি সামরিক ঘাঁটি বন্ধ করে দিতে হবে। কিন্তু কাতার সরকার তাদের এসব শর্ত মানতে অস্বীকার করেছে।


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

پیام امام خامنه ای به مسلمانان جهان به مناسبت حج 2016
We are All Zakzaky
telegram