তিন স্যুটকেসে কী সরালো সৌদি

তিন স্যুটকেসে কী সরালো সৌদি

ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে ফের দেখা গেছে কর্মকর্তাদের সন্দেহজনক আনাগোনা। তিনটি স্যুটকেস নিয়ে শুক্রবার খুব সকালে কনস্যুলেট থেকে বের হয়ে যায় একটি গাড়ি।

আবনা ডেস্কঃ ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে ফের দেখা গেছে কর্মকর্তাদের সন্দেহজনক আনাগোনা। তিনটি স্যুটকেস নিয়ে শুক্রবার খুব সকালে কনস্যুলেট থেকে বের হয়ে যায় একটি গাড়ি।
ওই তিনটি স্যুটকেসের সঙ্গে একটি কালো ব্যাগও গাড়িতে তুলে দেন কনস্যুলেটের কর্মকর্তারাই। খাসোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে সৌদি-তুর্কি টাস্ক ফোর্সের তদন্তের মধ্যে কনস্যুলেটে ঘটনাটি ঘটেছে।
তুর্কি সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সির এক সাংবাদিক এ খবর জানিয়েছেন। এ ঘটনার প্রমাণ হিসেবে দুটি ছবিও তুলেছেন তিনি। স্যুটকেসগুলোতে করে সৌদি কর্মকর্তারা কী সরালো- এ নিয়ে ফের তোলপাড় শুরু হয়েছে ইস্তাম্বুলজুড়ে।
এদিকে তদন্তকারীরা বলছেন, খাসোগির দেহাবশেষ সম্ভবত সৌদি কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেলের বাগানের কূপে ফেলা হয়েছে। তাদের বিশ্বাস, খাসোগির বাগদত্তা হ্যাতিস সেঙ্গিসের হইচইয়ের কারণে ভয় পেয়ে তড়িঘড়ি করে কূপের মধ্যে ফেলে দেয় হত্যাকারীরা।
ইয়েনি সাফাক জানায়, শুক্রবার খুব সকালে সৌদি কনস্যুলেটের প্রধান ফটকের সামনে কালো গ্লাস লাগানো বড় একটি গাড়িকে অপেক্ষা করতে দেখা যায়। এ সময় আরেকটি গাড়ি থেকে নামিয়ে ওই স্যুটকেসগুলোর সঙ্গে একটি কালো ব্যাগ কালো গাড়িটিতে তুলে দেয়া হয়।
তবে স্যুটকেসগুলো আর ব্যাগটিতে ঠিক কি রয়েছে তা জানা যায়নি। কনস্যুলেট কর্মকতাদের সন্দেহজনক আনাগোনার খবর প্রকাশ হওয়ার পর এ নিয়ে খোঁজখবর শুরু করেছেন তদন্তকারীরা।
এদিকে তুরস্কের তদন্তকারীরা বলছেন, খাসোগির অবশিষ্ট দেহাবশেষ ইস্তাম্বুলেই রয়েছে এবং সেটা খুব সম্ভবত কনসাল জেনারেলের বাগানের কূপের মধ্যে। এর আগে স্কাই নিউজের খবরে বলা হয়, খাসোগির কিছু টুকরা ওই বাগানে পাওয়া গেছে।
তদন্তকারী একদল পুলিশ বলেছেন, কনস্যুলেটের মধ্যেই খাসোগিকে হত্যা করা হয় এবং তার দেহাবশেষ স্যুটকেস ও ব্যাগে ভরে কনস্যুলেট থেকে ৩০০ মিটার দূরের কনসাল জেনারেলের বাড়িতে সরিয়ে নেয়া হয়। এজন্য ব্যবহার করা হয় ভিটো মিনিবাস বলে একটি ছোট গাড়ি।


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

Pesan Haji 2018 Ayatullah Al-Udzma Sayid Ali Khamenei
We are All Zakzaky