যারিয়া ট্রাজেডির একমাস পর;

শেইখ যাকযাকির সাথে প্রথম সাক্ষাত

  • News Code : 730947
  • Source : ABNA
Brief

শেইখ যাকযাকি ও নাইজেরিয় সেনাবাহিনীর হাতে আটক শত শত ব্যক্তির মুক্তির জন্য বারবার দাবী জানানোর পর নাইজেরিয়ার ইসলাম বিষয়ক উচ্চতর পরিষদের সদস্যদেরকে এদেশের ইসলামি মুভমেন্টের নেতা শেইখ যাকযাকির সাথে সাক্ষাত ও কথা বলার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা –আবনা- : নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় যারিয়া এলাকার শিয়াদের উপর মর্মান্তিক হামলার –যাতে শত শত ব্যক্তি শহীদ, আহত ও নিখোঁজ হয়- দীর্ঘ একমাস পার আশাব্যঞ্জক সংবাদ পাওয়া গেছে।

নাইজেরিয়া ইসলামি মুভমেন্টের এক বিশ্বস্ত সূত্র জানিয়েছে, শেইখ যাকযাকি ও নাইজেরিয় সেনাবাহিনীর হাতে আটক শত শত ব্যক্তির মুক্তির জন্য বারবার দাবী জানানোর পর নাইজেরিয়ার ইসলাম বিষয়ক উচ্চতর পরিষদের সদস্যদেরকে এদেশের ইসলামি মুভমেন্টের নেতা শেইখ যাকযাকির সাথে সাক্ষাত ও কথা বলার সুযোগ দেওয়া হয়।

সূত্র জানিয়েছে, ঔ পরিষদের একটি বিশেষ টিম, গত বুধবার (১৩ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় দুপুর ২ টায় আবুজা’র একটি বাড়িতে শেইখ যাকযাকির সাথে সাক্ষাত করেন।

ইসলাম বিষয়ক উচ্চতর পরিষদের সদস্য প্রফেসর যুহাইর ইয়াহিয়ার ভাষ্যমতে তারা শেইখ যাকযাকি ও তার স্ত্রী যিনাত ইব্রাহিমের সাথে সাক্ষাত করেন।

নাইজেরিয় সেনাবাহিনী গত ১২ ডিসেম্বর, সেনাবাহিনী প্রধান টুকুর ইউসুফ বুরতাইয়ের বহরের পথ আটকানোর উদ্ভট বাহানায় এদেশের শিয়াদের উপর নৃশংস হামলা চালায়। এরপর তারা যারিয়া শহরে শেইখ যাকযাকির বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাকে আটক করে। এ সময় শেইখের হেফাজতের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদেরকেও সরাসরি গুলি করে হত্যা করে সৈন্যরা।

ঘটনার একমাস পেরিয়ে গেলেও এ পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে ঐ ঘটনায় নিহতদের সংখ্যা ঘোষণা করা হয়নি। তবে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানিয়েছে অন্তত ৩০০ ব্যক্তি এ হামলা প্রাণ হারিয়েছে। মানবাধিকার বিষয়ক অপর সংস্থাগুলো এ ঘটনায় ১ হাজারেরও বেশী লোক প্রাণ হারাতে পারে বলে ধারণা করছে।

শেইখ যাকযাকি ও তার স্ত্রীর অবস্থানের স্থান সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হওয়া না গেলেও ঘটনার একমাস পর নাইজেরিয়ার ইসলাম বিষয়ক উচ্চতর পরিষদের সদস্যদের শেইখ যাকযাকির সাথে সাক্ষাতের বিষয়টি আশাব্যঞ্জক।

নাইজেরিয়া ইসলামি মুভমেন্টের নেতা শেইখ যাকযাকি ও তার স্ত্রী সেনাবাহিনীর হামলায় গুরুতর আহত হন। বর্তমানে তাদের চিকিৎসা চলছে।

নাইজেরিয়া ইসলামি মুভমেন্ট জানিয়েছে, তারা এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানায় এবং এ প্রক্রিয়া শেইখ যাকযাকির লক্ষ লক্ষ ভক্তের উদ্বেগকে কমাবে বলে তারা আশাবাদী।

নাইজেরিয়া ইসলামি মুভমেন্টের মুখপাত্র ‘ইব্রাহিম মুসা’ এক বিবৃতিতে বলেন, শেইখ যাকযাকিসহ অপর বন্দীদের মুক্তির পাশাপাশি যারিয়া ট্রাজেডিতে নিখোঁজ ব্যক্তিদের অবস্থা স্পষ্ট না হওয়া পর্যন্ত আমরা আমাদের দাবীতে অটল থাকবো।

এ দেশের শিয়াদের উপর সেনাবাহিনী অন্যায়ভাবে যে হামলা চালিয়েছে তার কোন বিহিত এখনো করতে পারেনি সরকার। শেইখ যাকযাকিসহ আটক অপর ব্যক্তিদের মুক্তি, নিখোঁজ ব্যক্তিদের বিষয়টি স্পষ্ট করা এবং ঘটনার সাথে জড়িত সেনা সদস্যদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ১২ই ডিসেম্বরের মর্মান্তিক ঘটনার পর তৈরী তালিকাতে ৭৩০ জন নারী ও পুরুষের নাম রয়েছে, যাদের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।

ইব্রাহিম মুসা বলেন : এ সকল ব্যক্তিরা সেনাবাহিনীর হাতে নিহত হয়েছে অথবা আটক রয়েছে। কিন্তু তাদের অবস্থা সম্পর্কে কোন তথ্য আমাদের কাছে নেই।

তার সংযোজন : নাইজেরিয়ার ইসলামি মুভমেন্টের প্রায় ২২০ সদস্য বর্তমানে কাদুনা শহরের কারাগারে আটক রয়েছে।

উল্লেখ্য, সেনাবাহিনীর হামলার ফলে সৃষ্ট সংকট নিরসনে নাইজেরিয়ার উচ্চতর ইসলামি পরিষদের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন নাইজেরিয়া ইসলামি মুভমেন্টের মুখপাত্র।#


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

conference-abu-talib
We are All Zakzaky