আয়াতুল্লাহ নিমরের মৃত্যুদণ্ড, প্রতিক্রিয়া ও বিশ্ব-জনমতের নিন্দা

  • News Code : 729627
  • Source : IRIB
Brief

সৌদি সরকার সেদেশের প্রখ্যাত শিয়া মুসলিম আলেম শেইখ নিমরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করায় বিশ্বের বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে।

আবনা ডেস্ক : সৌদি সরকার সেদেশের প্রখ্যাত শিয়া মুসলিম আলেম শেইখ নিমরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করায় বিশ্বের বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে। বিশ্বের বিখ্যাত অনেক সংবাদ মাধ্যম খ্যাতনামা বিশ্লেষকদের উদ্ধৃতি দিয়ে এইসব নিন্দায় যোগ দিয়েছে।
সৌদি আরবের প্রখ্যাত শিয়া মুসলিম আলেম শেইখ নিমরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা নিয়ে তেহরান-রিয়াদ উত্তেজনা জোরদারের ঘটনায় বিশ্ব-জনমতের বেশিরভাগই ইরানের পক্ষে রয়েছে বলে মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমস মন্তব্য করেছে।
ওই মৃত্যুদণ্ডাদেশ কার্যকর করায় তেহরানের কড়া প্রতিবাদ এবং তেহরানস্থ সৌদি দূতাবাসে একদল বিক্ষুব্ধ ও উত্তেজিত ইরানি জনতার হামলার অজুহাতে রাজতান্ত্রিক সৌদি সরকার ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করেছে।
নিউইয়র্ক টাইমস এ সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে লিখেছে, ‘ইউরোপীয়রা দীর্ঘকাল ধরে মধ্যপ্রাচ্যে সৌদি সরকারের শান্তি-বিনাশী পদক্ষেপগুলো লক্ষ্য করছে। তারা সৌদি সরকারের সাম্প্রতিক পদক্ষেপগুলোর নিন্দা জানাতে মোটেই দেরি করেনি। আর এ থেকেই মধ্যপ্রাচ্যে দাঙ্গা বাধানোর ক্ষেত্রে সৌদি ভূমিকা ও সৌদি সরকারের নীতির ব্যাপারে পশ্চিমা জনগণের উদ্বেগ ফুটে উঠেছে। ইউরোপের সরকারগুলোর কাছে সৌদি আরব অস্ত্র বিক্রির একটি লোভনীয় বাজার হওয়া সত্ত্বেও সন্ত্রাসীদের প্রতি সৌদি সরকারের আর্থিক ও নানা ধরনের সহায়তার বিষয়ে ইউরোপীয় জনগণের প্রতিবাদ ক্রমেই বাড়ছে।’
মার্কিন দৈনিকটি আরও লিখেছে, ‘সামাজিক নেটওয়ার্কসহ নানা মিডিয়ার প্রকাশিত বিশিষ্ট ব্যক্তি ও বিশেষজ্ঞদের অভিমত পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, বেশিরভাগ ইউরোপীয়রাই তেহরান-রিয়াদ সম্পর্কে নতুন উত্তেজনার জন্য সৌদি সরকারকেই দোষী মনে করছেন। তারা বলছেন, রিয়াদ আয়াতুল্লাহ নিমরকে হত্যা করে এই সংকট সৃষ্টি করেছে। মাথা কেটে নিমরসহ ৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার নৃশংস ঘটনার পর অসন্তোষ বা বিক্ষোভ দেখা দেবে-এই সম্ভাবনার কথা সৌদি সরকার জানত। আর এই অসন্তোষের অপব্যবহার করারও পরিকল্পনা নিয়ে রেখেছিল সৌদি রাজ-সরকার। সৌদি সরকার এর মাধ্যমে দেশটির অর্থনৈতিক সংকট ও প্রতিবাদী শিয়া মুসলমানদের ওপর সরকারি দমন অভিযানের বিষয়কে জনগণের দৃষ্টি থেকে আড়ালের চেষ্টা করেছে। মধ্যপ্রাচ্যে ইসলামী জাগরণ শুরু হওয়ার পর থেকে সৌদি সরকার দেশটির জনগণ ও প্রতিবাদীদের সঙ্গে আরও বেশি কঠোর আচরণ করছে। কিন্তু পাশ্চাত্য ও মার্কিন সরকারের উচিত নয় মানবাধিকারের প্রকাশ্য লঙ্ঘন ও মাজহাবি দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ার ব্যাপারে চোখ বন্ধ রাখা। কিংবা এ অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য যেসব প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে তা দুর্বল করে দেয়ার পদক্ষেপগুলোকে সহজেই সফল হতে দেয়া উচিত হবে না।’
এদিকে চীনা দৈনিক চায়না ডেইলিও এক নিবন্ধে বলেছে, উত্তেজনা যতই বাড়বে সৌদি সরকারের ততই ক্ষতি হবে। ‘ইউরো-এশিয়া’ নামের একটি পরামর্শক সংস্থা ‘২০১৬ সালের সবচেয়ে বড় বিপদগুলোর মধ্যে’ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সৌদি সরকারের একঘরে অবস্থা জোরদার এবং ইরানের আঞ্চলিক প্রভাব বাড়ার কথা তুলে ধরে বলেছে, এইসব বিপদের কারণে সৌদি রাজতান্ত্রিক সরকারকে তার স্বার্থ সুরক্ষার কাজ দ্বিগুণ বাড়াতে হবে। এদিকে জার্মান অর্থমন্ত্রীও বলেছেন, সৌদি রাজার নির্দেশে গণহারে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার বৃহত্তম ঘটনার পর এই দেশটিতে অস্ত্র রফতানি বন্ধ করার কথা ভাবছে বার্লিন।
সৌদি আরবের ৭০ লাখ শিয়া মুসলমানের শীর্ষস্থানীয় নেতা এবং বিশ্বের শিয়া ও সুন্নি মুসলমানের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তার অধিকারী বিশিষ্ট আলেম শেইখ নিমরসহ ৪৭ ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার ঘটনাকে ‘নববর্ষকে অভূতপূর্ব সৌদি স্টাইলে স্বাগত’ জানানো বলে নিন্দা জানিয়েছে ব্রিটেনের দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্ট।
বিশিষ্ট সাংবাদিক রবার্ট ফিস্ক এই দৈনিকে লিখেছেন, গণহারে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার ওই ঘটনা তাকফিরি-ওয়াহাবি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসআইএল বা দায়েশের হত্যাযজ্ঞের সঙ্গে তুলনার যোগ্য। তিনি প্রশ্ন করেন, এ অবস্থায়ও ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ও পাশ্চাত্য তেল-সমৃদ্ধ আরব দেশগুলোর রাজা-বাদশাহদের তোষামোদি বন্ধ করবে কি?
সৌদি সরকার একই দিনে নিমরের মত প্রখ্যাত শিয়া নেতাসহ ৪৭ ব্যক্তির মাথা বিচ্ছিন্ন করে মুসলিম বিশ্বে আইএসআইএল-এর মতই শিয়া-সুন্নি দাঙ্গা ছড়ানোর চেষ্টা করছে বলে রবার্ট ফিস্ক মন্তব্য করেছেন। তার মতে সৌদি সরকার যা করেনি তা হল দায়েশ তথা আইএসআইএল-এর মত এইসব নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ভিডিও প্রচার। ইসলামের নামে বিভ্রান্ত ওয়াহাবি চিন্তাধারার অনুসারী সৌদি সরকার গত বছর মাথা কেটে ১৫৮ ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে বলেও ফিস্ক স্মরণ করিয়ে দেন।
সৌদি আরবে স্বাধীনভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠান ও নির্বাচিত গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা এবং শিয়া মুসলমানদের প্রতি বৈষম্য ও নির্যাতন বন্ধ করার দাবি তুলেছিলেন শেইখ নিমর। আর এ জন্যই সৌদি সরকার তাকে রাজ-সিংহাসনের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি বলে মনে করেছে। নিমরের আহ্বান এতটাই জোরালো হয়েছিল যে সাবেক সৌদি রাজা আবদুল্লাহর সাবেক এক কন্যাও নিমরের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সৌদি আরব থেকে রাজতন্ত্র উৎখাত করতে দেশটির জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন।
এদিকে আয়াতুল্লাহ শেইখ নিমরের ভাই মুহাম্মাদ আল নিমর জানিয়েছেন, সৌদি সরকার আয়াতুল্লাহ নিমরের ছেলে আলী নিমরকেও হত্যা করতে চায়। আলী নিমরকে ২০১১ সালে সরকার বিরোধী মিছিলে যোগ দেয়ার দায়ে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার বয়স ছিল ১৭ বছর। আলী নিমরকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে সৌদি দরবারি আদালত। বিশ্বের মানবাধিকার সংস্থাগুলো সৌদি সরকারের এই পদক্ষেপেরও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।
উল্লেখ্য,গত দুই জানুয়ারি শনিবার আয়াতুল্লাহ নিমরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ বিশ্বের বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা ও সরকারের বিরোধিতা উপেক্ষা করে এই মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।
নিমরের পারিবারিক সূত্রের বরাত দিয়ে কোনো কোনো সংবাদসূত্র জানিয়েছে সৌদি প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও ডেপুটি যুবরাজ সালমান নিজে নিমরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার ঘটনা তদারক করেছেন। সালমান নিজেই নিমরের মস্তক তলোয়ার দিয়ে বিচ্ছিন্ন করার আগে এই সম্মানিত আলেমের হাত ও পা ভেঙ্গে দেন। সৌদি রাজার পক্ষ থেকে নিমরকে ক্ষমা করার এক প্রস্তাবে বলা হয়েছিল যে, সৌদি রাজতন্ত্রের সমালোচনা থেকে তাকে বিরত থাকতে হবে এবং এ যাবত তিনি যেসব সমালোচনা করেছিলেন সে জন্য দুঃখ প্রকাশ করে তাকে বিবৃতি দিতে হবে। কিন্তু আপোষহীন নিমর এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। শহীদদের নেতা ইমাম হুসাইন (আ)’র আদর্শ অনুসরণ করে জালিম ও তাগুতি সরকারের সঙ্গে আপোষ করার চেয়ে শাহাদত বরণ করাকেই তার জন্য বেশি সম্মানজনক বলে মনে করতেন আয়াতুল্লাহ নিমর। তিনি সৌদি রাজাদেরকে ইয়াজিদের সমতুল্য বলে প্রকাশ্যে নিন্দা জানিয়েছিলেন। আয়াতুল্লাহ নিমর ইয়েমেন ও বাহরাইনের গণতন্ত্রকামী নিরপরাধ জনগণের ওপর সৌদি সেনা অভিযানের নিন্দা জানিয়ে বলেছিলেন, সৌদি সরকার যদি সত্যিকার অর্থেই ইসলামের সেবা করতে চায় তাহলে মজলুম ফিলিস্তিনিদের রক্ষার জন্য ইসরাইলের সঙ্গে যুদ্ধ করতে সেখানে সেনা পাঠাক।#


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

پیام امام خامنه ای به مسلمانان جهان به مناسبت حج 2016
We are All Zakzaky
telegram