?>

আইন-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে আলোচনা করলেন পুতিন ও তোকায়েভ

আইন-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে আলোচনা করলেন পুতিন ও তোকায়েভ

কাজাখস্তানে চলমান সহিংসতা মোকাবেলা এবং দেশটিতে আইন-শৃঙ্খলা পুনর্বহাল করার উপায় নিয়ে আলোচনা করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট কাসিম জোমরাত তোকায়েভ। সব জ্বালানির দাম আকস্মিকভাবে বেড়ে যাওয়ার পর দেশটিতে সহিংস বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে এবং এ পর্যন্ত অন্তত ১৮ পুলিশসহ বহু মানুষ মারা গেছে।

গতকাল (শনিবার) এক বিবৃতিতে রুশ প্রেসিডেন্টের দপ্তর ক্রেমলিন জানিয়েছে, কাজাখস্তানের চলমান অস্থিরতা নিয়ে দুই নেতা টেলিফোনে দীর্ঘসময় ধরে আলোচনা করেন। কাজাকিস্তানের আইন শৃঙ্খলা পুনর্বহালের বিষয় নিয়ে মূলত তারা মতবিনিময় করেন। টেলিফোন সংলাপে তোকায়েভ পুতিনকে দেশের বিস্তারিত পরিস্থিতি জানান। তিনি জানিয়েছেন ধীরে ধীরে পরিস্থিতি শান্ত হয়ে আসছে।

কাজাখ পরিস্থিতি নিয়ে অব্যাহত যোগাযোগে থাকায় বিষয়ে দুই প্রেসিডেন্ট সম্মত হন এবং কালেক্টিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অর্গানাইজেশন বা সিএসটিও'র নেতাদের সমন্বয়ে শিগগিরি একটি ভিডিও কনফারেন্স আয়োজনের বিষয়ে পুতিন ও কাজাখ প্রেসিডেন্ট একমত হন। কাজাখস্তানের চলমান অশান্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার ক্ষেত্রে এই সামরিক জোটের সহযোগিতার জন্য তোকায়েভ পুতিনকে ধন্যবাদ জানান।

কাজাখস্তানের পশ্চিমাঞ্চলীয় মানগিস্তাওয়ে লিকুইফাইড পেট্রোলিয়াম গ্যাস বা এলপিজির ওপর থেকে মূল্য নিয়ন্ত্রণ তুলে নিলে গ্যাসের দাম কয়েকদিনের ব্যবধানে প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যায়। এ নিয়ে সেখানে রোববার থেকে প্রচণ্ড বিক্ষোভ শুরু হয় এবং দেশের অন্যান্য অঞ্চলেও তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

বুধবার প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ দেশে দুই সপ্তাহের জন্য রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন যার মধ্যে কারফিউ জারি করা হয় এবং সমাবেশ নিষিদ্ধ ও সব ধরনের আন্দোলন কর্মসূচির উপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়। ওইদিন শেষবেলায় মন্ত্রিসভা পদত্যাগ করে এবং প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ দেন। একই সঙ্গে তিনি এলপিজির দাম নিয়ন্ত্রণ এবং ডিজেল-পেট্রোলসহ সামাজিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ সমস্ত পণ্যের সরবরাহ স্বাভাবিক করার নির্দেশ দেন।#


342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*