?>

আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু করেছে তুরস্ক

আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু করেছে তুরস্ক

তুরস্ক জানিয়েছে, আফগানিস্তান থেকে নিজেদের সেনা প্রত্যাহার শুরু করেছে আঙ্কারা। কাবুলের কৌশলগত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা দেয়ার ক্ষেত্রে সাহায্য করার যে পরিকল্পনা নিয়েছিল আঙ্কারা দৃশ্যত সে আশা তারা ছেড়ে দিয়েছে। তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় গতকাল (বুধবার) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, “অর্পিত দায়িত্ব সফলতার সঙ্গে পালনের পর আফগানিস্তান থেকে তুর্কি সেনা দেশে ফিরে আসছে।”

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা) : আফগান তালেবানের পক্ষ থেকে তুরস্কের কাছে কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পরিচালনার ক্ষেত্রে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে বিদেশি অন্য সেনাদের সঙ্গে তুরস্কের সেনাদেরও চলে যাওয়ার কথা বলেছে তালেবান।

তালেবান বলছে ৩১ আগস্টের মধ্যে বিদেশি সমস্ত সেনা প্রত্যাহার করতে হবে নইলে দোহায় স্বাক্ষরিত চুক্তির লঙ্ঘন বলে ধরে নেয়া হবে। তবে কয়েক মাস ধরেই তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান বলে আসছেন- অনুরোধ পেলে কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তুর্কি সেনা মোতায়েন রাখা হবে।

গত ১৫ই আগস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করার পর তালেবানকে কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের টেকনিক্যাল ও নিরাপত্তার বিষয়ে সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়েছে তুরস্ক।

তুরস্ক আশা করছিল যে, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করার পর দেশটিতে তুর্কি সেনা মোতায়েন থাকবে। কিন্তু তালেবান দ্রুত কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার ফলে তুরস্কের সে আশা অনেকটা নস্যাৎ হয়ে যায়। আফগানিস্তানে তুরস্কের ৫০০’র বেশি সেনা মোতায়েন ছিল।

এদিকে, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান বলেছেন, তিনি এখনো আফগানিস্তানে ভূমিকা রাখার ব্যাপারে আগ্রহী। এর মাধ্যমে তালেবানের সঙ্গে যোগাযোগের লাইন খোলা রাখা যাবে বলে তিনি মনে করেন। তিনি বলেন, এটি আফগানিস্তানের স্থিতিশীলতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।# 

342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*