?>

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সংক্রান্ত গোপন তথ্য ফাঁস করার অভিযোগ

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সংক্রান্ত গোপন তথ্য ফাঁস করার অভিযোগ

ইরান বিরোধী একটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর রিংলিডারের বিরুদ্ধে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সংক্রান্ত গোপনীয় তথ্য ফাঁস করে দেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। তোন্দার নামক ওই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর রিংলিডার জামশিদ শরমাহদ গত দুই দশক ধরে আমেরিকায় বসে তার তৎপরতা চালিয়ে আসছিল।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): ইরানের ইসলামি শাসনব্যবস্থার পতন ঘটিয়ে সাবেক রাজতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সন্ত্রাসী তৎপরতা চালিয়ে আসছিল শরমাহদ। তাকে ২০২০ সালের আগস্ট মাসে এক জটিল অভিযানে বিদেশ থেকে আটক করে দেশে নিয়ে আসে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী।

সন্ত্রাসী গোষ্ঠী তোন্দার ২০০৮ সালে ইরানের শিরাজ শহরের একটি ধর্মীয় মাহফিলে শক্তিশালী বোমা হামলা চালায়। ওই হামলায় ১৪ জন নিহত ও প্রায় ৩০০ জন আহত হয়। এছাড়া, বিগত বছরগুলোতে শিরাজের একটি বাঁধ উড়িয়ে দেয়া এবং তেহরান বইমেলায় সায়ানাইড বোমা হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠী। কিন্তু ইরানের নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা বাহিনীগুলোর সময়োচিত পদক্ষেপের কারণে সেসব পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়।শরমাহদের নেতৃত্বাধীন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটি ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানী মাসুদ আলী মোহাম্মাদি হত্যার ঘটনায়ও জড়িত ছিল।

তেহরানের একটি আদালতে গতকাল (মঙ্গলবার) জামশিদ শরমাহদের বিচারের চতুর্থ দিনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এতে সরকারি কৌঁসুলি হাসানি এতেমাদ অভিযোগ করেন, আটক ব্যক্তি আইআরজিসি’র ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সম্পর্কিত রাষ্ট্রীয় অতি গোপন তথ্য ফাঁস করে দিয়েছে। এছাড়া, সে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ এবং এফবিআইকে ইরান বিরোধী তৎপরতা চালাতে সহযোগিতা করেছে। ইরানের এই সরকারি আইনজীবী বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তি বিদেশে অবস্থান করে ইরানে সন্ত্রাসী হামলা ও নাশকতামূলক তৎপরতা চালিয়ে আসছিল।

২০২০ সালে জামশিদ শরমাহদকে আটক করার পর তাকে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছিল আমেরিকা। ইরান সে আহ্বানের কোনো জবাব দেয়নি। এর আগে তার নেতৃত্বাধীন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে সহযোগিতা করার অভিযোগে ইরানে দুই ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।#


342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*