?>

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ওমান ও কাতার সফর: আঞ্চলিক পরিস্থিতিতে এ সফরের গুরুত্ব

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ওমান ও কাতার সফর: আঞ্চলিক পরিস্থিতিতে এ সফরের গুরুত্ব

প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ইরানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে তেহরান ব্যাপক কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল ওমান সফরে গিয়ে সেদেশের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। ওমান সফর শেষ করে এরই মধ্যে তিনি কাতার সফরে গেছেন।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা) : ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমন সময় প্রতিবেশী দেশগুলোতে সফরে বেরিয়েছেন যখন ভিয়েনায় ইরান বিরোধী অন্যায় ও অবৈধ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর মধ্যে জোর আলোচনা চলছে। কোনো কোনো মহলের ব্যাপক চাপ ও ষড়যন্ত্র সত্বেও আলোচনায় বেশ অগ্রগতি হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এদিকে, সাম্প্রতিক দিনগুলোতে তুর্কমেনিস্তান, আফগানিস্তান ও তাজিকিস্তানসহ অন্যান্য প্রতিবেশী দেশগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে ইরানের কর্মকর্তাদের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক ও আঞ্চলিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ছাড়া ইরান দক্ষিণের পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের প্রতিবেশী দেশগুলোকেও বার্তা পাঠিয়ে তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় তেহরানের গভীর আগ্রহের কথা জানিয়েছে।

এ লক্ষ্যে ইরান ও সৌদি আরবের প্রতিনিধি দল সম্পর্ক উন্নয়নে এবং বেশ কিছু ইস্যুতে ভুল বোঝাবুঝি দূর করতে বেশ কয়েক দফা বৈঠকে মিলিত হয়েছে। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিব যাদেহ সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ইরাকের মধ্যস্থতায় ইরান ও সৌদি আরবের কর্মকর্তারা পঞ্চম দফা বৈঠকে মিলিত হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন এবং বেশ কিছু বিষয়ে মতবিরোধ চলা সত্বেও দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নয়নে আলোচনা অব্যাহত থাকবে।

এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, বাইরের কুচক্রি মহল বিশেষ করে আমেরিকা ও দখলদার ইসরাইল প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ইরানের সম্পর্কে ফাটল ধরানোর জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে তারা এ অঞ্চলে ইরান আতঙ্ক সৃষ্টি ও মিথ্যাচার করে আরব দেশগুলোর কাছে বিপুল অস্ত্র বিক্রির ক্ষেত্র সৃষ্টি করছে। বলা যায় মধ্যপ্রাচ্যকে তারা অস্ত্রের গুদামে পরিণত করেছে। আঞ্চলিক দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত করার মাধ্যমে আমেরিকা ও ইসরাইল ইরানের ওপর সর্বোচ্চ চাপ সৃষ্টির কৌশল গ্রহণ করেছে।

প্রকৃতপক্ষে, তেহরান প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সর্বোত্তম সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করছে। এরই আলোকে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ওমান ও কাতার সফরের গুরুত্ব উপলব্ধি করা যায়। আঞ্চলিক নানা বিষয়ে ইরানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ও সহযোগিতা বজায় রেখেছে ওমান ও কাতার। দুই দেশই পরমাণু সমঝোতা বিষয়ে ইরানের অবস্থানকে সমর্থন জানিয়ে সব দেশকেই এ চুক্তি মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছে।

অতীত অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে, কেবল এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে সহযোগিতার মাধ্যমেই সবার স্বার্থ রক্ষা করা সম্ভব। ওমান ও কাতারে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর আঞ্চলিক সহযোগিতা বিস্তারে ভূমিকা রাখবে বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন। #

342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*