?>

এই ঈদ আমাদের কাছে একটা নতুন সূর্যোদয়ের মতো : মমতা

এই ঈদ আমাদের কাছে একটা নতুন সূর্যোদয়ের মতো : মমতা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, এই ঈদ আমাদের কাছে একটা নতুন সূর্যোদয়ের মতো। কেউ যদি কখনো আপনাদের ক্ষতি করতে চায় তাহলে সে উপযুক্ত শিক্ষা পাবে।

(ABNA24.com) ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, এই ঈদ আমাদের কাছে একটা নতুন সূর্যোদয়ের মতো। কেউ যদি কখনো আপনাদের ক্ষতি করতে চায় তাহলে সে উপযুক্ত শিক্ষা পাবে।

তিনি আজ (বুধবার) পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতার ঐতিহ্যবাহী রেড রোডের ঈদের জামাতে উপস্থিত হয়ে সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে দেয়া ভাষণে ওই মন্তব্য করেন।

মমতা বিজেপির নাম না করে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করে বলেন, ‘ইতনা ডরনেকা বাত নেহি হ্যায়। এত ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সূর্যের তেজ কখনো কখনো খুব বেড়ে যায়। কিন্তু পরে কমেও যায়। টাইম বিইং, যত দ্রুত ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোট যন্ত্র) ক্যাপচার করেছিল, তত দ্রুত চলেও যাবে। ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। যে ভয় পায়, সে মরে যায়। যে লড়ে, সেই সফল হয়।’

মমতা সবাইকে অভয় দিয়ে বলেন, ‘সর্বধর্ম সমন্বয় বজায় রাখার ক্ষেত্রে আমরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই চালিয়ে যাব। কোনো কিছুতে আপনারা ভয় পাবেন না।’

মমতা বলেন, ‘আপনারা ভালো থাকুন, সুন্দর থাকুন।  ইনশাআল্লাহ্‌ মানুষের জয় হোক। জয়হিন্দ, জয় বাংলা, জয় ভারত।’

তিনি বলেন, ‘যে আমাদের সঙ্গে সংঘর্ষে নামবে সে চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে যাবে। এত ভয় পাওয়ার কিছু নেই। মুরদই লাখ্ বুরা চাহে তো কেয়া হোতা হ্যায়, ওহি হোতা হ্যায় যো মঞ্জুরে খোদা হোতা হ্যায়। অর্থাৎ শত্রুরা লাখো অমঙ্গল কামনা করুক তাতে কিছুই হবে না। সেটাই ঘটবে যা খোদাতালা  নির্ধারন করেছেন।’ তিনি বলেন, ‘তুমমে অউর মুঝমে তো ফরখ হ্যায় হি, কিঁউ কি তুম কবর সে ডরতে হো। অউর কাফন মেরা ইন্তেজার করতি  হ্যায়!’ অর্থাৎ ‘তোমার ও আমার মধ্যে ফারাক তো আছেই। তুমি কবরে যেতে ভয় পাও আর কাফন আমার প্রতীক্ষা করে।’

মমতা বলেন,‘সবাই আমরা এক। ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। আল্লাহতায়ালা আপনাদের ভালো রাখুক।  

আপনাদের ঘরে আলোর রোশনি আসুক। আপনারা সবাই খুশিতে ঈদ যাপন করুন।’ আপনাদের পরিবার, আপনাদের ভবিষ্যৎ, আপনাদের সমাজ, আপনাদের সংস্কার, আপনার রাজ্য, আপনার দেশ, সারা বিশ্বে ইনশাআল্লাহ আপনাদের জন্য ঈদ খুশির হয়ে উঠুক বলেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেন।#




/129


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*