?>

কাশ্মিরে শিশু আসিফা গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দোষীদের সাজা ঘোষণা

কাশ্মিরে শিশু আসিফা গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দোষীদের সাজা ঘোষণা

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরের কাঠুয়ায় ৮ বছরের এক শিশুকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দোষীদের সাজা ঘোষণা ঘোষণা করেছে পাঠানকোট বিশেষ আদালত। আজ (সোমবার) এ ব্যাপারে ৬ জনকে প্রথমে দোষী সাব্যস্ত করে আদালত। পরে তাদের বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করা হয়।

(ABNA24.com) ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরের কাঠুয়ায় ৮ বছরের এক শিশুকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দোষীদের সাজা ঘোষণা ঘোষণা করেছে পাঠানকোট বিশেষ আদালত। আজ (সোমবার) এ ব্যাপারে ৬ জনকে প্রথমে দোষী



/129সাব্যস্ত করে আদালত। পরে তাদের বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করা হয়।

ওই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত সাঞ্জিরামের পাশাপাশি দীপক খাজুরিয়া ও পরবেশ কুমারকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং পুলিশের উপপরিদর্শক আনন্দ দত্ত, হেড কনস্টেবল তিলক রাজ ও বিশেষ পুলিশ কর্মকর্তা সুরেন্দ্র ভার্মাকে প্রমাণ নষ্টের অভিযোগে পাঁচ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। সাঞ্জিরামের ছেলে বিশাল নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে মুক্তি দেয়া হয়।

২০১৮ সালের ১০ জানুয়ারি আসিফা নামে ৮ বছরের এক নাবালিকা শিশুকে অপহরণ করা হয়। জম্মু-কাশ্মিরের কঠুয়ায় একটি মন্দিরে আটকে রেখে, তাকে মাদক খাইয়ে গণধর্ষণ করা  হয়। এরপর শ্বাসরোধ করে, মাথা থেঁতলে তাকে হত্যা করা হয়। ১৭ জানুয়ারি জঙ্গল থেকে পুলিশ ওই শিশুর ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার করলে দেশ জুড়ে ওই ঘটনার প্রতিবাদে মানুষজন তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

ওই মামলার শুনানি প্রথমে জম্মু আদালতে করা হলেও পরে পাঠানকোট আদালতে শুনানি হয়। আজ পাঠানকোট আদালত থেকে দোষীদের সাজা ঘোষণা করা হয়।

ওই মামলায় মোট ৮ জন অভিযুক্ত ছিল। এরা হল, সাবেক রেভিনিউ কর্মকর্তা সঞ্জিরাম, বিশেষ পুলিশ কর্মকর্তা দীপক খাজুরিয়া, সুরিন্দর কুমার, পরবেশ কুমার, সঞ্জিরামের ছেলে বিশাল এবং এক নাবালক। তার বিচার আলাদাভাবে হচ্ছে। এছাড়া দু’জন তদন্তকারী কর্মকর্তা হেডকনস্টেবল তিলকরাজ ও সাব ইনস্পেক্টর আনন্দ দত্ত মামলার গুরুত্বপূর্ণ নথি নষ্ট করার দায়ে অভিযুক্ত হয়েছিল। এদের মধ্যে ৬ জনকে আদালত দোষী সাব্যস্ত করে। পরে তাদের বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করা হয়।#




/129


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*