?>

কাশ্মিরে সংঘর্ষ: লাঠি-গুলি ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ, আহত ৬৫

কাশ্মিরে সংঘর্ষ: লাঠি-গুলি ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ, আহত ৬৫

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনী ও বেসামরিক জনতার মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ৬৫ জন আহত হয়েছে। আজ (বুধবার) দক্ষিণ কাশ্মিরের তাজিপোরা, কুলগামে নিরাপত্তা বাহিনী মারমুখী জনতাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করা, কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ, পেলেট গান ব্যবহারের পাশপাশি শূন্যে গুলি ছুঁড়লে ৫৮ জন বেসামরিক ব্যক্তি আহত হন। এসময় নিরাপত্তা বাহিনীর ৭ জওয়ানও আহত হন।

(ABNA24.com) ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনী ও বেসামরিক জনতার মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ৬৫ জন আহত হয়েছে। আজ (বুধবার) দক্ষিণ কাশ্মিরের তাজিপোরা, কুলগামে নিরাপত্তা বাহিনী মারমুখী জনতাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করা, কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ, পেলেট গান ব্যবহারের পাশপাশি শূন্যে গুলি ছুঁড়লে ৫৮ জন বেসামরিক ব্যক্তি আহত হন। এসময় নিরাপত্তা বাহিনীর ৭ জওয়ানও আহত হন।

আজ ভোরে সেনাবাহিনীর রাষ্ট্রীয় রাইফেলস, আধা সামরিক বাহিনী সিআরপিএফ ও স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের সদস্যরা যৌথভাবে কুলগামের তাজিপোরা এলাকায় লুকিয়ে থাকা এক সন্ত্রাসীকে পাকড়াও করতে অভিযান চালায়। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে ওই এলাকায় ৩/৪ সন্ত্রাসী লুকিয়ে আছে বলে খবর ছিল। যৌথবাহিনী সংশ্লিষ্ট এলাকার দিকে এগিয়ে যেতেই সন্ত্রাসীরা তাদেরকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এসময় জওয়ানরাও পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ নিরাপত্তা বাহিনী এক সন্ত্রাসী নিহত হওয়ার দাবি জানালেও তার লাশ উদ্ধার হয়নি। এসময় প্রচুর মানুষজন সংঘর্ষস্থলে পৌঁছে নিরাপত্তা বাহিনীকে অভিযান বন্ধ করতে ও ঘেরাও বন্ধ করতে বলে। যৌথবাহিনী না থামায় স্থানীয় মানুষজন তাদের উপরে পাথর নিক্ষেপ করলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। মারমুখী জনতাকে জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে নিরাপত্তা বাহিনী এসময় গুলিবর্ষণও করে। যদিও পুলিশ তা অস্বীকার করে শূন্যে গুলি নিক্ষেপের কথা স্বীকার করেছে।

ওই ঘটনায় মোট ৬৫ জন আহত হয়। এদের মধ্যে ৭ নিরাপত্তা কর্মী রয়েছেন। আহতদের চিকিৎসার জন্য মুহাম্মাদপুরে প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। গুরুতর আহত ৯ জনকে কুলগাম জেলা হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

কুলগামের মেডিক্যাল সুপার ডা. মুজাফফর জারগার আহত সাতজনকে শ্রীনগরে স্থানান্তর করার কথা জানান। এদের মধ্যে একজন গুলিবিদ্ধ হলে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। স্থানীয়দের দাবি, পুলিশ বিনাপ্ররোচনায় গুলিবর্ষণ করেছে। পুলিশের পক্ষ থেকে অবশ্য ওই দাবি অস্বীকার করে সংঘর্ষস্থলে পাথর নিক্ষেপকারী মানুষজন ঢুকে পড়ায় ক্রসফায়ারে এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট এলাকায় তল্লাশি অভিযান চলছে।   

অন্যদিকে, আজ দক্ষিণ কাশ্মিরের সোপিয়ানের একটি গ্রামে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ঘেরাও ও তল্লাশি অভিযান চালাতে গেলে স্থানীয় মানুষজনের বাধার মুখে পড়ে নিরাপত্তা বাহিনী। নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে মানুষজন পাথর নিক্ষেপ করলে বাহিনীর পাল্টা জবাবে পেলেটগান ও কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করলে কমপক্ষে ২০ তরুণ আহত হয়। কর্তৃপক্ষ সতর্কতামূলক পদক্ষেপে মোবাইল ইন্টারনেট পরিসেবা স্থগিত  রেখেছে।#  



/129


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*