?>

খুলনায় বিশেষ আয়োজনে ইসলামী বিপ্লবের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

জনৈক ব্যক্তি ইরাকের আয়াতুল্লাহ বাকের সদরকে ইমাম খোমেনী সম্পর্কে নসিহত করার অনুরোধ করলে তিনি বলেন, ইমাম খোমেনী ইসলামের সাথে যেভাবে ওতপ্রোতভাবে মিশে গেছেন তোমরাও তার সাথে সেভাবে মিশে যাও।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা: চেতনাকে ধারণ করে হযরত আয়াতুল্লাহ ইমাম খোমেনী’র (রহ.) নেতৃত্বে যে বিপ্লব ১৯৭৯ সালে ইরানের বুকে প্রতিষ্ঠালাভ করেছিল সে বিপ্লব আজ ৪১ বছর পেরিয়ে বিজয়ের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করছে।


এ উপলক্ষে আঞ্জুমান-এ-পাঞ্জাতানী ইমামবাড়ীতে আহলে বাইত (আ.) ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সভার কর্মসূচী শুরু হয়।

মূল আলোচনার সূচনা বক্তব্যে আঞ্জুমান-এ-পাঞ্জাতানীর সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ ইকবাল ইসলামী বিপ্লবকে একটি অলৌকিক বিপ্লব আখ্যায়িত করে বলেন যে বিপ্লব আজ থেকে ৪১ বছর পূর্বে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছিল তা সমহিমায় আজ সারা বিশ্বে আলোর বিচ্ছুরণ ঘটাচ্ছে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে হুজ্জাতুল ইসলাম মোঃ আব্দুল লতিফ তার সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বলেন ইরানের খুররাম শহর যখন বিজিত হলো তখন এ সংবাদ শুনে ইমাম খোমেনী (রহ.) বলেছিলেন যে, এ বিজয় আমাদের নয় বরং আল্লাহর গায়েবী মদদে সম্ভব হয়েছে।

হুজ্জাতুল ইসলাম মোঃ আনিসুর রহমান বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন ইসলামী বিপ্লব শুধু ইরানের বা শিয়াদের বিপ্লব নয় বরং সমগ্র মুসলিম জাতির বিপ্লব।

হুজ্জাতুল ইসলাম মোঃ আলী মুর্তজা তার গুরুত্বপূর্ণ আলোচনায় বিপ্লবের স্থপতি হযরত ইমাম খোমেনীর (রহ.) বিচক্ষণতা ও দূরদর্শিতার বিষয় উল্লেখ করে বলেন, যখন তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল আপনি যে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন সে আন্দোলনের সপক্ষে জনশক্তি কোথায়? তিনি উত্তর দিয়েছিলেন, এখনো মায়ের কোলে, পরবর্তীতে দেখা গেল মায়ের কোলের সে শিশুরাই বড় হয়ে বিপ্লব বিজয়ে মুখ্য ভূমিকা রেখেছিল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ হুজ্জাতুল ইসলাম সাইয়্যেদ ইব্রাহীম খলিল রাজাভি বিপ্লব পরবর্তী কিছু বিষয় তুলে ধরে বলেন, এক ব্যক্তি ইরাকের আয়াতুল্লাহ বাকের সদরকে ইমাম খোমেনী সম্পর্কে নসিহত করার অনুরোধ করলে তিনি বলেন, ইমাম খোমেনী ইসলামের সাথে যেভাবে ওতপ্রোতভাবে মিশে গেছেন তোমরাও তারসাথে সেভাবে মিশে যাও। এছাড়াও বিপ্লবের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে প্রধান বক্তা তার বক্তব্য শেষ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যের পূর্বে ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের সাংস্কৃতিক শিল্পীগোষ্ঠী বিপ্লব সম্পর্কিত সঙ্গীত পরিবেশন করে।

অনুষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেন ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষক হুজ্জাতুল ইসলাম মোঃ শহীদুল হক।

প্রসঙ্গত, দেশসহ বিশ্বের সকল মুসলমানদের কল্যাণে দোয়ার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।#


সম্পর্কিত প্রবন্ধসমূহ

আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

پیام رهبر انقلاب به مسلمانان جهان به مناسبت حج 1441 / 2020
conference-abu-talib
We are All Zakzaky