?>

দিগ্বিজয় সিং, ফারুক আবদুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতি তালেবানদের পাশে দাঁড়িয়েছেন : অজয় মিশ্র

দিগ্বিজয় সিং, ফারুক আবদুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতি তালেবানদের পাশে দাঁড়িয়েছেন : অজয় মিশ্র

ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্র (টেনি) প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা দিগ্বিজয় সিং, জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও পিডিপি সভানেত্রী মেহবুবা মুফতি এবং জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রধান ডা. ফারুক আবদুল্লাহ সম্পর্কে বলেছেন, ‘দিগ্বিজয় সিং, ফারুক আবদুল্লাহ এবং মেহেবুবা মুফতি তালেবানের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা) : তারা কী নারীদের প্রতি তালেবানের মনোভাব স্বীকার করছেন? যদি তারা তা না করেন, তাহলে তাদের প্রকাশ্যে প্রতিবাদ করা উচিত।’ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা অজয় মিশ্র আজ (শুক্রবার) ওই মন্তব্য করেছেন।   

গতকাল (বৃহস্পতিবার) কংগ্রেসের মহাসচিব দিগ্বিজয় সিং উগ্র হিন্দুত্ববাদী রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সঙ্ঘের (আরএসএস) প্রধান মোহন ভাগবতের একটি মন্তব্য প্রসঙ্গে বলেন, কর্মজীবী নারীদের ব্যাপারে তালেবান এবং সংঘের মতামত একই। দিগ্বিজয় সিং বলেন- ‘তালেবানদের কথা নারীরা মন্ত্রী হওয়ার যোগ্য নয়। ভাগবত বলেছেন, মহিলাদের বাড়িতে থাকা উচিত। এগুলো কী সমমনা নয়?’      

এ প্রসঙ্গে আজ মধ্য প্রদেশের বিজেপি নেতা ও রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরোত্তম মিশ্র কংগ্রেস নেতা ও মধ্য প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিংয়ের তালিবান ও আরএসএসের তুলনা করায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন।

তিনি বলেন, দিগ্বিজয় সিংয়ের দেশপ্রেমিকদের বিরুদ্ধে কথা বলার অভ্যাস আছে এবং আরএসএস–এর উপরে তার অ্যালার্জি আছে।   

মন্ত্রী নরোত্তম মিশ্র কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিংয়ের সমালোচনা করে বলেন, তিনি এ পর্যন্ত কখনো রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে টুইট করেননি, কখনো  ‘আইএসআই’-এর বিরুদ্ধে টুইট করেননি,  সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে টুইট করেননি,  শাহী ইমামের বিরুদ্ধে টুইট করেনি, কিন্তু সঙ্ঘ প্রধানের বিরুদ্ধে করেছেন। তার আরএসএসের প্রতি অ্যালার্জি আছে। কিন্তু রোহিঙ্গাদের সম্পর্কে কোনো অ্যালার্জি নেই।  

সম্প্রতি জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রধান ডা. ফারুক আবদুল্লাহ বলেন, আফগানিস্তান একটি পৃথক দেশ। যারা এখন সেখানে এসেছে তাদেরকে সেই দেশ সামলাতে হবে। আমি আশা করি তারা সকলের প্রতি ন্যায়বিচার করবে এবং ইসলামী নীতিমালার উপর একটি ভাল সরকার পরিচালনা করবে।    

অন্যদিকে, একইসময়ে জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও পিডিপি সভানেত্রী মেহবুবা মুফতি বলেন, তালেবান একটি বাস্তবতা হিসেবে বেরিয়ে আসছে এবং তাদের উচিত যে তারা প্রথমবারের মতো যে ছবি তৈরি করেছে তা মানুষের বিরুদ্ধে ছিল কিন্তু এবার তারা এসে আফগানিস্তানে শাসন করতে চায়। প্রকৃত শরীয়া যা বলে, যা আমাদের কুরআন শরীফে আছে। যা শিশু ও নারীদের অধিকার। কীভাবে শাসন করতে হবে তা আমাদের ‘মদিনা মডেল-এ রয়েছে। তাই তারা যদি সত্যিই এটি বাস্তবায়ন করতে চায়, তাহলে তারা বিশ্বের জন্য একটি উদাহরণ হয়ে উঠতে পারে।   

বিরোধী নেতা-নেত্রীদের এ ধরণের মন্তব্য প্রকাশ্যে আসার পর থেকে বিজেপি নেতারা তাদের বিরুদ্ধে সমালোচনায় সোচ্চার হয়েছেন।#  

342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*