?>

পশ্চিম কাবুলে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দায় মাজমা’র বিবৃতি

পশ্চিম কাবুলে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দায় মাজমা’র বিবৃতি

সম্প্রতি আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় বিবৃতি প্রকাশ করে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে মাজমা।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): সম্প্রতি আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় বিবৃতি প্রকাশ করে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা (মাজমা)।

বিবৃতির মূল অংশ

بسم رب الشهداء و الصدیقین

কাবুলের তিবইয়ান সেন্টার, সাইয়্যেদুশ শোহাদা দাশত বারচি এবং কুন্দুজ ও কান্দাহারের শিয়া মসজিদে হামলার ঘটনায় হতাহত শিক্ষার্থী ও মুসল্লিদের শোক কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আবারও নতুন এক শোক যুক্ত হল।

আল্লাহ্ ও জনগণের শত্রু গত বছর রমজান মাসের ন্যায় চলতি বছরও কাবুলের অসহায় শিয়াদের শিক্ষাকেন্দ্রে হামলা চালিয়ে বহু লোকের রক্ত ঝরিয়েছে। নিরাপরাধ শিশু-কিশোরদেরকে লক্ষ্য করে চালানো এ হামলার দুঃখ কাকে জানাবো।

আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা (মাজমা) ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবার-পরিজন এবং আফগানিস্তানের জনগণের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন পূর্বক ন্যাক্কারজনক এ হামলার তীব্র নিন্দা জানানোর পাশাপাশি এর সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানায়।

একইভাবে মাজমা আবারও শিয়া-সুন্নি ঐক্য এবং আফগানিস্তানে বসবাসরত সকল গোত্র-সম্প্রদায়ের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার প্রতি গুরুত্বারোপ করে এ দেশের শাসকদের প্রতি এ আহবান জানায় যে, আপনাদের কৃত প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী শিয়াদের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও ধর্মীয় কেন্দ্রগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন।

বিগত কয়েক মাসের আত্মঘাতী হামলা -যেগুলোর বেশীরভাগ টার্গেট ছিল শিয়া মুসলিমরা- থেকে স্পষ্ট হয় যে, সরকার জনগণের অর্থনৈতিক সমস্যা সমাধানে কার্যকরী পদক্ষেপ তো নেয় নি বরং তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেও ব্যর্থ হয়েছে।

সুনিশ্চিতভাবে বলা যায়, শিয়াদের কেন্দ্র ও সমাবেশস্থলগুলোর নিরাপত্তা কার্যক্রমে যদি আফগানিস্তানের শিয়া আলেমসমাজ ও জনগণের সহযোগিতা গ্রহণ করা হয় তাহলে তারা এ সমস্যা নিরসন সহজ হবে।

আফগানিস্তানের সংস্কার ও সম্প্রসারণ স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা ব্যতীত কোনভাবেই সম্ভব নয়। আর স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা তখনই প্রতিষ্ঠিত হবে যখন সকল মাযহাব ও সম্প্রদায় সমর্থিত কোন সরকার দেশের ক্ষমতায় বসবে।

সবশেষে, ‘মুমতাজ’ ও আব্দুর রাহিম শহীদ’ স্কুলের নিস্পাপ ছাত্রদের হতাহতের বেদনাদায়ক ঘটনায় আমরা ইমামে যামানা (আ.), মুসলিম উম্মাহ, আফগানিস্তানের দুর্দশাগ্রস্ত মানুষ ও ক্ষতিগ্রস্থদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। মহান প্রতিপালকের দরবারে ঘটনায় শাহাদাত প্রাপ্তদের জন্য আওলিয়া আল্লাহর ওলিদের সোহবত এবং আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

«وَ سَيَعلَمُ الَّذِينَ ظَلَمُوا أَيَّ مُنقَلَبٍ يَنقَلِبُون»

‘আর অত্যাচারীরা অচীরেই জানতে পারবে কোন প্রত্যাবর্তনস্থলে তারা প্রত্যাবর্তন করবে’

আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা

৩১ ফারভারদিন, ১৪০১ (ফার্সি সন)

#176


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*