?>

পাঞ্জাবে নূপুর শর্মার সমর্থনে পোস্ট, পরিস্থিতি সামাল দিতে ডাকতে হল পুলিশ

পাঞ্জাবে নূপুর শর্মার সমর্থনে পোস্ট, পরিস্থিতি সামাল দিতে ডাকতে হল পুলিশ

ভারতে হিন্দুত্ববাদী বিজেপির সাবেক মুখপাত্র নূপুর শর্মার বিতর্কিত মন্তব্যের পর দেশে শুরু হওয়া বিতর্কের উত্তাপ এবার পাঞ্জাবে পৌঁছেছে। পাঞ্জাবের জলন্ধরে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সিটি ইনস্টিটিউটে ওই ইস্যুতে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির এক ছাত্রী নূপুর শর্মার পক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দেওয়ার পর ওই বিতর্ক শুরু হয়। মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্যকে কেন্দ্র করে বিজেপি সম্প্রতি নূপুর শর্মাকে সাসপেন্ড করেছে। কিন্তু ওই পদক্ষেপ যথেষ্ট নয় জানিয়ে মুসলিমরা বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ প্রদর্শনের মধ্যদিয়ে অভিযুক্ত ওই বিজেপি নেত্রীকে গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছেন।           

পাঞ্জাবের জলন্ধরে সিটি ইনস্টিটিউটে অধ্যয়নরত জম্মুর এক হিন্দু ছাত্রী শুক্রবার রাতে নুপুর শর্মার পক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছিলেন। এতে শিক্ষা  প্রতিষ্ঠানটিতে অধ্যয়নরত মুসলিম শিক্ষার্থীরা ব্যাপক ক্ষুব্ধ হয় এবং তারা এ নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি করে। এখানে অধ্যয়নরত সকল শিক্ষার্থী শুধুমাত্র জম্মু-কাশ্মীরের বলা হচ্ছে। পরিস্থিতি এতটাই উত্তেজনাপূর্ণ হয়ে ওঠে যে ইনস্টিটিউটে পুলিশ মোতায়েন করতে হয়।   

আজ (রোববার) হিন্দি ‘জি নিউজ’ সূত্রে প্রকাশ, শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে গোটা বিবাদ শুরু হয় এবং তা ভোর ৫টা পর্যন্ত চলে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মুসলিম শিক্ষার্থীরা জোর করে ওই হিন্দু ছাত্রীকে ক্ষমাও চাইয়েছে। শুধু তাই নয়, পুলিশ ও ইনস্টিটিউটের ম্যানেজমেন্টও এই পুরো বিবাদে ওই হিন্দু মেয়েকে দোষারোপ করে তাকে ভুল বলেছে।   

মুসলিম শিক্ষার্থীদের তোলপাড় দেখে সিটি ইনস্টিটিউটের হিন্দু শিক্ষার্থীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন শিক্ষার্থী গণমাধ্যমকে বলেন, মুসলিম শিক্ষার্থীরা সারা রাত ধরে হট্টগোল করে এবং উত্তেজনাকর পরিবেশ সৃষ্টি করে। ওই ছাত্ররা উচ্চস্বরে স্লোগান দেয় এবং ভাঙচুর চালায়। পরিবেশ এতটাই উত্তাল হয়ে ওঠে যে হিন্দু শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্য লুকিয়ে থাকতে হয়। অবশেষে, নূপুর শর্মার পক্ষে পোস্ট দেওয়া ওই ছাত্রী চাপের মুখে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হয় এবং এরপর পরিস্থিতি  শান্ত হয়।    

ইনস্টিটিউটের ‘পিআরও’, কানওয়ারপ্রীত স্বীকার করেছেন যে কাশ্মীরের মুসলিম শিক্ষার্থীরা রাতে ক্যাম্পাসে প্রচুর হট্টগোল সৃষ্টি করেছিল। মুসলিম ছাত্রদের দাবি ছিল, জম্মুর একটি হিন্দু মেয়ে নূপুর শর্মার পক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি পোস্ট করেছে এবং সে ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত বিবাদ চলবে। অবশেষে ওই ছাত্রী ক্ষমা চাওয়ার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। #

342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*