কুষ্টিয়ায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান তিন নারী আটক

কুষ্টিয়ায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান তিন নারী আটক

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পেয়েছে জঙ্গি দমনে গঠিত কাউন্টার টেরোরিজমের একটি ইউনিট। শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে শহরের তালতলায় ১টি টিনশেডের বাড়িকে ঘিরে অভিযান চালায় পুলিশ সদস্যরা।

আবনা ডেস্কঃ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পেয়েছে জঙ্গি দমনে গঠিত কাউন্টার টেরোরিজমের একটি ইউনিট। শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে শহরের তালতলায় ১টি টিনশেডের বাড়িকে ঘিরে অভিযান চালায় পুলিশ সদস্যরা। সেখান থেকে দুটি সুইসাইডাল ভেস্টসহ নব্য জেএমবির আমীর আইয়ুব আলী ওরফে আইয়্যুব বাচ্চু’র স্ত্রী তিথি (২৮), সেকেন্ড ইন কমান্ড আবদুর রশিদ’র স্ত্রী সুমাইয়া (২৭), বাড়ির ভাড়াটে টলি খাতুন (৩৫)কে আটক করে পুলিশ। এ সময় উদ্ধার করা হয় ৭.২ বোরের একটি অত্যাধুনিক পিস্তল, ম্যাগাজিন ও গান পাউডার। বাড়িতে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্য রয়েছে ধারণা করে অভিযানিক দল পুরো বাড়িটি ঘিরে রেখেছে। সব ধরনের চলাচল নিয়ন্ত্রণ করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।
সূত্র জানায়, জঙ্গি আস্তানার বাড়িটি নাসিমা খাতুনের। বাড়িটি পুরনো একতলা বিশিষ্ট। তার ঠিক বিপরীতের ৪ তলার একটি বাড়িতে তিনি থাকেন। ভেড়ামারা উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের অফিস সহকারী পদে তিনি কর্মরত। তিনি জানান, গত ১লা নভেম্বর ২০১৬ বাড়িটি ভাড়া নেন ভেড়ামারা উপজেলার ঠাকুর দৌলতপুর গ্রামের আরমান হোসেনের স্ত্রী টালি খাতুন। পেশায় দর্জি টালি খাতুনের স্বামী ডিস লাইনের কাজ করতো। গত ২৯ জুন রাতে টালি খাতুনের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে শিশু সহ দু’জন মহিলা বাড়িতে বেড়াতে আসেন। একদিন পর সকালে জানতে পারি পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের ৩ জনকেই গ্রেপ্তার করেছে। তিনি জানান, তিনি জানতেন না তারা জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সদস্য।
কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম মেহেদী হাসান জানিয়েছেন, কাউন্টার টেরোরিজমের একটি ইউনিট নিশ্চিত হয় কুষ্টিয়া ভেড়ামারার তালতলার ওই একটি বাড়িটি জঙ্গি আস্তানা। সেখানে নিয়মিত যাতায়াত করতো নব্য জেএমবির আমীর আইয়্যুব আলী ওরফে আইয়্যুব বাচ্চু এবং সেকেন্ড ইন কমান্ড আবদুর রশিদ। সেখানে বসেই নাশকতার পরিকল্পনা করতো তারা। বাড়িতে আইয়্যুব বাচ্চুসহ আবদুর রশিদ অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর একটি যৌথ টিম সেখানে অবস্থান নেয়। রাত ৩টার দিকে ওই বাড়িতে অভিযান চালালে একজন মহিলা সুইসাইড ভেস্ট পরিহিত অবস্থায় পুলিশের উপর হামলার চেষ্টা চালায়। এ সময় পুলিশ সদস্যরা তা বিস্ফোরিত হওয়ার আগেই তাকে ধরে ফেলে বলে পুলিশ দাবি করেছে। পরে পর্যায়ক্রমে আরো দুজন মহিলাকে আটক করতে সক্ষম হয় তারা। পরে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, বেড়াতে আসা দু’নারী নব্য জেএমবির আমীর আইয়্যুব বাচ্চু’র স্ত্রী জঙ্গি তিথি (২৮) ও সেকেন্ড ইন কমান্ড আবদুর রশিদের স্ত্রী সুমাইয়া (২৭)। প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে তাদের বাড়ি নাটোর জেলায়। এরপর থেকেই পুরো বাড়ি ঘিরে রাখে পুলিশ। পুরো এলাকায় জনসাধারণ চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। সকাল ৭টার দিকেই প্রথম অভিযান শেষ করে ঢাকা থেকে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলের জন্য অপেক্ষা করছিল নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। দুপুর ২টার দিকে ঢাকা থেকে সিআইডির ফরেনসিক বিভাগের ৫ সদস্যের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে তারা নমুনা সংগ্রহ করে।
এদিকে বিকালে খুলনার এডিশনাল ডিআইজি একরামুল হাবীব চৌধুরী ঘটনাস্থলে পৌঁছে। ৫ টার দিকে ঢাকা থেকে বোম ডিসপোজাল ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছলে জঙ্গি আস্তানায় দ্বিতীয় দফা অভিযান শুরু হয়। এ সময় তারা অভিযানের নাম দেন “ট্রিপিড পান্স”। এরপর ৬টা ১১ মিনিটের দিকে একটি এবং ৬টা ৪৫ মিনিট এ আরেক বোমা নিষ্ক্রিয় করে। এ সময় বাড়ির মালিক নাসিমা খাতুনকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত দ্বিতীয় দফার অভিযান চলছিল।

১৪৪ ধারা জারি
এদিকে ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান জঙ্গি আস্তানার আশেপাশের এলাকার মানুষের জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে ১৪৪ ধারা জারি করে। দ্বিতীয় দফা অভিযানের শুরুর আগে তিনি এই ১৪৪ ধারা জারি করেন। তিনি মাইকিং করে আশপাশে ৫০০ মিটার এলাকার মধ্যে সকল ধরনের যান চলাচল এবং জন সাধারণের চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন
সন্ধ্যার ৬টার আগেই জঙ্গি আস্তানার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য ভেড়ামারা বিদ্যুৎ বিভাগকে নির্দেশ দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান। পরে বিদ্যুৎ বিভাগের উপ-প্রকৌশলী মিলন চন্দ্র সরকার সাড়ে ৫টার দিকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

ইসলামের মহান সেনাপতি জে. কাসেম সোলাইমানি ও আবু মাহদি আল-মুহানদিস
We are All Zakzaky
conference-abu-talib
No to deal of the century