?>

বিজেপি’র মতো বড় চোর আর কোথায় আছে, ওরা ডাকাত: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বিজেপি’র মতো বড় চোর আর কোথায় আছে, ওরা ডাকাত: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপিকে বড় চোর ও ডাকাত বলে মন্তব্য করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী আজ (মঙ্গলবার) জলপাইগুড়ির এবিপিসি ময়দানে দলীয় কর্মীসভায় ওই মন্তব্য করেন।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বিজেপি’র মতো বড় চোর আর কোথায় আছে? এত বড় ডাকাত সর্দার সব! চম্বলের বড় বড় ডাকাত! চম্বলের বড় বড় ডাকাত সারা জলপাইগুড়ি ও আলীপুরদুয়ারে নতুন একটা ধর্ম তৈরি করেছে, দাঙ্গা ধর্ম! কুৎসা ধর্ম, ঘৃণ্য ধর্ম। স্বামী বিবেকানন্দের হিন্দু ধর্ম নয়। রামকৃষ্ণ দেবের হিন্দু ধর্ম নয়।’ 

মুখ্যমন্ত্রী আজ বিজেপি বিগত নির্বাচনের সময়ে জনগণকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পালন করেনি বলে উল্লেখ করে বলেন,  বিজেপি বলেছিল তারা জিতলে পনেরো লাখ টাকা করে ব্যাঙ্ক একাউন্টে দেওয়ার কথা বলেছিল। কিন্তু কেউ কী পেয়েছেন? যদি কেউ পেয়ে থাকেন জানান। আর না পেয়ে থাকলে হাত নাড়িয়ে জোরে জোরে বলুন পাইনি। এ সময়ে উপস্থিত জনতা হাত নাড়িয়ে জানিয়ে দেন তাঁরা কেউ টাকা পাননি। মমতা বলেন, এভাবেই ওঁরা মানুষকে মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দেয়।

তিনি বলেন, ‘বাইরে থেকে আরএসএসের লোক যারা আসছে তাঁরা রামকৃষ্ণ মিশনের নয়, এরা ভারত সেবাশ্রম নয়, এরা স্বামী বিবেকানন্দ নয়, এরা একটা ঘৃণ্য ধর্মের প্রচারক।’

বিজেপিকে টার্গেট করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেন, ‘ওদের উদ্দেশ্য বাংলাটাকে ‘গুজরাট’ বানিয়ে দেওয়া। আমরা বাংলাকে (পশ্চিমবঙ্গ) গুজরাট বানাতে দেবো না।  ওদের উদ্দেশ্যে বাংলার মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়া। কিন্তু আমরা বাংলার মেরুদণ্ড ভাঙতে দেবো না।’

রাজ্যকে দেওয়া কেন্দ্রীয় সরকারের টাকা সম্পর্কে মমতা বলেন, ‘কীসের টাকা? মাঝে মাঝে বলে কেন্দ্রের টাকা,  দিল্লির টাকা। ওদের টাকা? দিল্লি টাকা কোথায় পায়? দিল্লির নিজস্ব কোনও টাকা নেই। রাজ্য থেকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আদায় হওয়া ট্যাক্সের টাকার ৪০ শতাংশ রাজ্যকে ফিরিয়ে দেয়। তাও ঠিকভাবে দেয় না। কিন্তু ওরা বড় বড় কথা বলে। এ ভাবেই ওরা মাছের তেলে মাছ ভাজছে’ বলেও  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেন।     

342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*