?>

বিশ্ব কুদস দিবসে মাজমা’র বিবৃতি

বিশ্ব কুদস দিবসে মাজমা’র বিবৃতি

বিশ্ববাসী কুদসকে পূর্ব ও পশ্চিম দু’ভাগে ভাগ করার নীতির তীব্র নিন্দা জানিয়ে কুদসকে স্থায়ী রাজধানী ঘোষণার প্রতি জোর তাগিদ দেয়। এর মাধ্যমে জায়নবাদী ইসরাইলকে নিশ্চিহ্ন করার লক্ষ্যে তারা আগের চেয়ে অধিক সচেতন। তারা সর্বদা মুসলিম বিশ্বসহ বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষদের নেতা ইমাম খামেনেয়ীর গণভোট আয়োজনের আহবানকে বাস্তবায়নের প্রতি গুরুত্বারোপ করে।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): পবিত্র রমজান মাসের শেষ শুক্রবার তথা বিশ্ব কুদস দিবস উপলক্ষে আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা গুরুত্বপূর্ণ এক বিবৃতি প্রকাশ করেছে।

বিবৃতির পূর্ণ অংশ:

بسم الله قاصم الجبارین

#কুদস বর্তমানে পূর্বের যে কোন সময়ের চেয়ে আমাদের নাগালের মধ্যে।#

ইমাম খোমেনি (রহ.) এর প্রতি মহান আল্লাহর সালাম ও দরুদ বর্ষিত হোক; যাঁর অনন্য উদ্যোগ পবিত্র রমজান মাসের শেষ শুক্রবারে বিশ্বের মুসলমান বিশেষ করে মুক্তিকামী মানুষদের হৃদয়কে বানের পানির গতিতে একত্রিত করে এবং তারা সম্মিলিতভাবে জামারা’তে শয়তানকে লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপের ন্যায় জায়নবাদী শয়তানদের বিরুদ্ধে বজ্রকণ্ঠে আওয়াজ তোলে।

জেনারেল সোলেইমানির মতো শহীদ সেনাপতিদেরকে আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে সীমানাহীন প্রতিরোধ আন্দোলন ফ্রন্টইস্রায়েলকে প্রতিটি মুহুর্তে ধ্বংসের দিকে তাড়িয়ে নিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি মুসলিম উম্মাহকে কুদসের দিকে ধাবিত করছে এবং ঐশী এ লক্ষ্যের আরও কাছাকাছি নিয়ে গেছে।

শান্তিপূর্ণ পরমাণু কর্মসূচীতে উন্নয়ন এবং ইসলাম দেশগুলোর প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, ব্যর্থ ডিল অব দ্যা সেঞ্চুরিতে স্বাক্ষরকারী কুদসে বসবাসরত (জায়নবাদীদের) শান্তির ঘুমকে হারাম করে দিয়েছে

এ ছাড়া মন্ত্রিপরিষদ গঠনে ব্যর্থ, শিশু-হত্যায় জড়িত নেতানিয়াহু এবং তার সরকারের নীতির বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ ইসরাইলকে ক্রমশ পতনের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। পারমাণবিক অবকাঠামোর উপর আক্রমণ, প্রতিনিয়ত ফিলিস্তিনিদের বাড়িতে তল্লাশি ও অভিযান এবংবন্দীদেরকে নিপীড়ন ও বন্দীদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান অপরাধ ও সহিংসতা ইহুদিবাদী সরকারকে পতনের দ্বারপ্রান্তে উপনীত করেছে। এ ক্ষেত্রে(মধ্যপ্রাচ্যের) পরনির্ভরশীল ও ভীতু দেশগুলির সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিক করণ ইসরাইলের কোন কাজে আসবে না।

তাদের জানা উচিত, বিশ্ববাসী কুদসকে পূর্ব ও পশ্চিম দু’ভাগে ভাগ করার নীতির তীব্র নিন্দা জানিয়ে কুদসকে স্থায়ী রাজধানী ঘোষণার প্রতি জোর তাগিদ দেয়। এর মাধ্যমে জায়নবাদী ইসরাইলকে নিশ্চিহ্ন করার লক্ষ্যে তারা আগের চেয়ে অধিক সচেতন। তারা সর্বদা মুসলিম বিশ্বসহ বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষদের নেতা ইমাম খামেনেয়ীর গণভোট আয়োজনের আহবানকে বাস্তবায়নের প্রতি গুরুত্বারোপ করে। এছাড়া আমেরিকা ও ইউরোপে ওয়েস্টার্ন নিওলিবারেলদের আসন্ন পতন এবং ইহুদিবাদী ইসরাইলের প্রতি তাদের সমর্থনের মাত্রায় হ্রাস জায়নবাদীদের বিদায় ঘন্টাই বাজাচ্ছে।

আহলে বাইত (আ।) বিশ্বসংস্থা, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসরত এর সকল সদস্য, প্রতিনিধি, মুবাল্লিগ এবং এ সংস্থার সাথে সম্পৃক্তদের প্রতি, মানুষের তৈরি অশুভ করোনার এই প্রাদুর্ভাবের সময় আগের তুলনায় অধিক সজাগ, সংহত ও আরও উদ্ভাবনী হয়ে ইসরাইলের অন্তঃশূন্য আধিপত্যের যুগের সমাপ্তি এবং তাদের ধ্বংস কামনায় বজ্রকণ্ঠে আওয়াজ তোলার আহবান জানায়। পাশাপাশি যে কোনও উপায়ে সর্বোচ্চ নেতা এবং বর্তমানে মুসলিম উম্মাহর অভিভাবকের আহবানের প্রতি সাড়া প্রদানের আহবান জানায়, কেননা ‘নিশ্চয়ই বিজয় ও মহান আল্লাহর সাহায্য সন্নিকটে’।

«يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا إِنْ تَنْصُرُوا اللَّهَ يَنْصُرْكُمْ وَيُثَبِّتْ أَقْدَامَكُمْ»

‘হে ঈমানদারগণ! যদি তোমরা আল্লাহকে সাহায্য করো তিনি তোমাদেরকে সাহায্য করবেন এবং তোমাদের পাগুলো দৃঢ়-প্রতিষ্ঠিত রাখবেন’। (মুহাম্মাদ : ০৭)

আহলে বাইত (আ.) বিশ্বসংস্থা,

২৩ রমজান, ১৪৪২ হি.


সম্পর্কিত প্রবন্ধসমূহ

আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*