?>

মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের প্রভাব নিয়ে বিদায়ী মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্টের বক্তব্য

মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের প্রভাব নিয়ে বিদায়ী মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্টের বক্তব্য

বিদায়ী মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ইরানের বিরুদ্ধে তার দেশের কর্মকর্তাদের ভিত্তিহীন অভিযোগের পুনরাবৃত্তি করেছেন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন যখন তার শেষ দিনগুলো অতিক্রম করছে তখন রোববার পেন্স ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লেমুর সেনা ঘাঁটিতে দেয়া এক বক্তব্যে বলেন, “চার বছর আগে আমরা যে সেনাবাহিনী পেয়েছিলাম মারাত্মকভাবে বাজেট কমিয়ে দেয়ার কারণে তা ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গিয়েছিল।”

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): এরপর ট্রাম্প প্রশাসনের পররাষ্ট্রনীতি বিশেষ করে ট্রাম্পের ইরান নীতির কথা উল্লেখ করে মাইক পেন্স দাবি করেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যখন দায়িত্ব গ্রহণ করেন তখন তার আগের প্রশাসনের ‘ভুল নীতির’ কারণে গোটা মধ্যপ্রাচ্যে ইরান শক্তিমত্তা প্রদর্শন করতে শুরু করেছিল। মাইক পেন্স আরো দাবি করেন, ট্রাম্প প্রশাসনের ‘সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের’ নীতির কারণে ইরানের সে শক্তির লাগাম টেনে ধরা সম্ভব হয়েছে।

বিদায়ী মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট এমন সময় এ দাবি করলেন যখন বিগত বছরগুলোতে মধ্যপ্রাচ্য থেকে সন্ত্রাসবাদের মূলোৎপাটনে ইরান কেন্দ্রীয় ভূমিকা পালন করেছে। এছাড়া, গত কয়েকদিনে ইরান কয়েকটি সামরিক মহড়া চালিয়ে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও নিজের সামরিক শক্তির জানান দিয়েছে।

এদিকে ট্রাম্প প্রশাসন তার শেষ দিনগুলোতে ইরানের বিরুদ্ধে উন্মাদনামূলক নিষেধাজ্ঞার আওতা বাড়ানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৮ সালের মে মাসে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে তার দেশকে একতরফাভাবে বের করে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। তিনি ইরানের বিরুদ্ধে কথিত সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতি গ্রহণ করলেও সে নীতির ব্যর্থতার বোঝা মাথায় নিয়ে আর দু’দিন পর আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমতা ত্যাগ করতে যাচ্ছেন।#


342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

پیام رهبر انقلاب به مسلمانان جهان به مناسبت حج 1441 / 2020
conference-abu-talib
We are All Zakzaky