?>

শহীদদের রক্তই কুদসের পথকে মুক্ত করবে : জেনারেল কায়ানি

শহীদদের রক্তই কুদসের পথকে মুক্ত করবে : জেনারেল কায়ানি

ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার জানিয়েছেন: মর্যাদা ও স্বাধীনতার পথে সকল ক্ষেত্রে প্রতিরোধ অব্যাহত রেখে আমরা আমাদের শত্রুদের বিরুদ্ধে অটল রয়েছি এবং অটল থাকব। প্রতিরোধ আন্দোলনের শহীদদের রক্তই কুদসের পথকে মুক্ত করবে।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): ইরানের রেভুল্যুশনারি গার্ড (IRGC)-এর কুদস ফোর্সের কমান্ডার জেনারেল কায়ানি ‘প্রতিরক্ষা যুদ্ধের আন্তর্জাতিক ও আইনি দাবী’ শীর্ষক এক সম্মেলনে বক্তৃতাকালে তিনি বলেন: ইসলাম হল প্রতিরোধের ধর্ম, যারা প্রতিরোধের রাস্তায় রয়েছে তারা মহান আল্লাহর প্রতিশ্রুতির অন্তর্ভুক্ত। আমরা প্রতিরোধের কয়েকটি পর্যায়কে সফলতা ও গর্বের সাথে অতিক্রম করতে সক্ষম হয়েছি।

প্রতিরোধের মাধ্যমে মর্যাদা ও স্বাধীনতাকে অক্ষুন্ন রাখা সম্ভব –এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন: শত্রুপক্ষ আমাদের উপর যুদ্ধ চাপিয়ে দিলেও ইরানি জাতি প্রতিরোধের মাধ্যমে এ যুদ্ধের মোকাবেলা করেছে। এরপর তারা স্বাধীনতার এ শিক্ষা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসরত আল্লাহর রাসুল (সা.) এর সন্তানদেরকে (মুসলিম উম্মাহ) শিখিয়েছে। এ অর্জন একদিনের নয় বরং পর্যায়ক্রমে অর্জিত হয়েছে। আজ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে নির্যাতনের সর্বোচ্চ পর্যায়ের শিকার হয়েও স্বাধীনতার পথে এগিয়ে যাচ্ছে মুসলমানরা এবং তারা এর মাধ্যমে মুসলিম উম্মাহর জন্য মর্যাদা অর্জন করছে।

তিনি বলেন: যারা এ পথে নেতৃত্ব দিয়েছেন তারা প্রতিরোধের মূল শিক্ষাকে তুলে ধরেছেন। প্রতিরোধের মাঠের হুমকিকে সর্বোত্তম সুযোগে পরিণত করার বিষয়টি এক ধরণের কার্যকরি কৌশল। বুদ্ধিবৃত্তির ভিত্তিতে দেশ পরিচালনায় সক্ষম এমন কোন শক্তির হাতে যদি যুক্তরাষ্ট্রের শাসন ক্ষমতা থাকত তাহলে তারা হুমকি-ধামকি থেকে হাত গুটিয়ে নিত। কেননা তারা যে হুমকিই দিয়েছে তা সর্বোত্তম সুযোগে পরিণত হয়েছে।

জেনারেল কায়ানি বলেন: শত্রুপক্ষ আমাদের উপর যুদ্ধ চাপিয়ে দিয়েছে, কিন্তু এ যুদ্ধই আমাদের জন্য এমন সুযোগ সৃষ্টি করেছে যার মাধ্যমে আমরা নিজেদের পরিচয় এবং ইসলামি বিপ্লবকে বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছি।

তার সংযোজন: আমরা এখন প্রতিরোধের মাঠের ভাষা বুঝি। নিষেধাজ্ঞা, সততা, যুক্তি, শক্তি এবং কর্তৃত্বের ভাষা সম্পর্কে আমরা পরিচিত। আর এও জানি যে, আমেরিকার সাথে কীভাবে কথা বলতে হয়;যে বল প্রয়োগের ভাষা ব্যতীত অন্য কোন ভাষা বোঝে না।

তিনি বলেন: শহীদ সোলাইমানি ছিলেন ইমাম খোমেনি (রহ.) ও মহামান্য রাহবারের শিক্ষালয়ের যোগ্য ছাত্র। যিনি প্রতিরোধের পরিভাষাগুলোকে নিজের মাঝে স্থান দিয়েছিলেন এবং সেগুলোকে প্রয়োজনে ব্যবহার করতেন। আর এ ভাষাতেই শত্রুদের সাথে কথা বলেছেন। তিনি প্রথম দিন থেকেই নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় নিরলস পরিশ্রম করেছেন। বিগত ১০ বছর যাবত তিনি বিশ্বের বলদর্পী শক্তিগুলোর মদতপুষ্ট সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সরাসরি অবস্থান নিয়েছেন।

মার্কিনীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন: জনারেল সোলাইমানির দূরদর্শিতা ও বিচক্ষণতার বিপরীতে তোমরা অসহায় হয়েই তাকে সন্ত্রাসী বলেছ, আর মানবাধিকারের ধ্বজাধারীরা এক্ষেত্রে নিরব থেকেছে।

কুদস ফোর্সের প্রধান আরও বলেন: শহীদ জেনারেল সোলাইমানির এ পথ অব্যাহত থাকবে, এর বিপরীতে আমরা সকলে দায়িত্বশীল। মর্যাদা ও স্বাধীনতার পথে সকল ক্ষেত্রে প্রতিরোধ অব্যাহত রেখে আমরা আমাদের শত্রুদের বিরুদ্ধে অটল রয়েছি এবং অটল থাকব। প্রতিরোধ আন্দোলনের শহীদদের রক্তই কুদসের পথকে মুক্ত করবে#176


সম্পর্কিত প্রবন্ধসমূহ

আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*

پیام رهبر انقلاب به مسلمانان جهان به مناسبت حج 1441 / 2020
conference-abu-talib
We are All Zakzaky