?>

সর্বোচ্চ নেতার সহানুভূতিশীল ভাষণই আমার জন্য শেষ কথা: জারিফ

সর্বোচ্চ নেতার সহানুভূতিশীল ভাষণই আমার জন্য শেষ কথা: জারিফ

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ সম্প্রতি তার এক গোপন সাক্ষাৎকারের বিষয়বস্তু সম্পর্কে সর্বোচ্চ নেতার ভাষণকে মাথা পেতে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সর্বোচ্চ নেতার সহানুভূতিশীল ভাষণই আমার জন্য শেষ কথা।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা) : জারিফ রোববার রাতে নিজের ইনস্টাগ্রাম পেজে দেয়া এক পোস্টে লিখেছেন, সর্বোচ্চ নেতার বক্তব্য অতীতের যেকোনো সময়ের মতো আমার ও আমার সহকর্মীদের জন্য শেষ কথা। এই ভাষণের মাধ্যমে এ সংক্রান্ত সব বিতর্কের অবসান হয়েছে।

জারিফ বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মী হিসেবে আমি সব সময় এই দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করতাম যে, দেশের সর্বোচ্চ অবস্থান থেকে যে সিদ্ধান্ত আসবে তা বাস্তবায়ন করাই আমাদের দায়িত্ব।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, দেশের শত্রুরা আমার এমন একটি সাক্ষাৎকারের অংশবিশেষ প্রকাশ করেছে তার বিন্দুবিসর্গও প্রকাশ করার কথা ছিল না এবং প্রকাশ করার লক্ষ্যে সাক্ষাৎকারটি রেকর্ডও করা হয়নি। তারপরও আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা সম্পর্কিত ওই সাক্ষাৎকার সর্বোচ্চ নেতাকে মনোক্ষুণ্ন করেছে বলে আমি অত্যন্ত দুঃখিত।

জারিফ তার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে আরো লিখেছেন, ইনশা আল্লাহ এখন থেকে আমি নিজে ও আমার সহকর্মীরা ইরানকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে সর্বোচ্চ নেতার প্রতিটি দিক-নির্দেশনা অক্ষরে অক্ষরে পালন করব।

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী রোববার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে বলেন, পৃথিবীর কোথাও কোনো দেশের পররাষ্ট্রনীতি ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নির্ধারণ করে না। প্রতিটি দেশের পররাষ্ট্রনীতি নির্ধারণের জন্য একটি উচ্চতর কর্তৃপক্ষ থাকে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সে নীতি বাস্তবায়ন করে মাত্র। আমাদের দেশে সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ এই নীতি নির্ধারণ করে এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তার নিজস্ব পদ্ধতিতে তা বাস্তবায়ন করে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট রুহানি সরকারের দুই দফায় আট বছরের শাসনামলের ‘মৌখিক ইতিহাস’ রেকর্ড করে রাখার অংশ হিসেবে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর একটি সাক্ষাৎকার রেকর্ড করা হয়। তবে সাক্ষাৎকারটি সরকারি গোপন দলিল হিসেবে সংরক্ষিত থাকার কথা থাকলেও সৌদি আরবের পেট্রোডলারের অর্থায়নে লন্ডন-ভিত্তিক ফার্সি টিভি চ্যানেল ‘ইরান ইন্টারন্যাশনাল’ প্রথম এই সাক্ষাৎকারের নির্বাচিত কিছু অংশ প্রচার করে। কীভাবে সাক্ষাৎকারটি প্রকাশ হয়ে গেল তা জানার জন্য প্রেসিডেন্ট রুহানি এরইমধ্যে সংশ্লিষ্ট বিভাগকে নির্দেশ দিয়েছেন।#

342/


আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*