?>

সাম্প্রতিক অভিযানে ইয়েমেনের অর্জন; মুক্ত হয়েছে ৬০০ কি.মি. এলাকা, শত্রু পক্ষের ৫০০০ সৈন্য হতাহত

সাম্প্রতিক অভিযানে ইয়েমেনের অর্জন; মুক্ত হয়েছে ৬০০ কি.মি. এলাকা, শত্রু পক্ষের ৫০০০ সৈন্য হতাহত

ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র দেশটির মাআরেব প্রদেশের নতুন কিছু এলাকা মুক্ত করার তথ্য প্রকাশ করে বলেন: ইয়েমেন সেনাবাহিনী প্রদেশের মূল শহরের কাছাকাছি পৌঁছুতে সক্ষম হয়েছে।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা (আবনা): ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ‘ইয়াহিয়া সারী’ বলেছেন, সরকারি বাহিনী মাআরেব প্রদেশের আরও কিছু এলাকা দখলদারদের হাত থেকে মুক্ত করতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি গত মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন: সাম্প্রতিক পরিচালিত ‘ফাজরুল ইন্তিসার’ অভিযানে মাআরিব প্রদেশের বেশ কিছু এলাকা মুক্ত করা সম্ভব হয়েছে। এ সকল এলাকা মুক্ত করতে কয়েকটি অক্ষ থেকে শত্রুদের উপর অভিযান পরিচালনা করা হয়।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারী বলেন: ইয়েমেনের সেনা ও গণবাহিনী পূর্বের নির্দেশনা অনুযায়ী অভিযানের শুরুতে সৌদি জোটের ভাড়াটে সৈন্যদেরকে উক্ত এলাকা ত্যাগ করার সুযোগ দেয়।

ঐ অভিযানে ভাড়াটে সৈন্যদের দখল থেকে ৬০০ কিলোমিটার এলাকা থেকে মুক্ত করার তথ্য নিশ্চিত করে তিনি বলেন: অভিযানে ‘আল-বা’সুল-শাদিদ’ এলাকা থেকে মাআরেব শহরের পার্শ্ববর্তী এলাকা পর্যন্ত মুক্ত করা সম্ভব হয়েছে।

ব্রি. জে. ইয়াহিয়া সারী’র সংযোজন: ইয়েমেন সেনাবাহিনীর এয়ার ডিফেন্স বিভাগ ১১টি গোয়েন্দা ড্রোনকে চিহ্নিত ও ধ্বংস করতে সক্ষম হয়েছে। এ সকল পদক্ষেপের মাধ্যমে এয়ার ডিফেন্স শত্রুদের মনে ভীতির সঞ্চার এবং তাদের পরিকল্পনাকে ব্যর্থ করে দিয়েছে। শত্রুদের হামলার জবাবে এয়ার ডিফেন্স কর্তৃক চালানো ৫১৮টি হামলা শত্রুদেরকে এলাকা ছেড়ে পলায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, সাম্প্রতিক অভিযানেসশস্ত্র ওপদাতিক বাহিনী থেকে শুরু করেকামান ইউনিট, বিমান প্রতিরক্ষা,ক্ষেপণাস্ত্র ওইউএভি ইউনিট এবং গোয়েন্দা ইউনিটের উপস্থিতি ছিল অনন্য।

ইয়াহিয়া সারী বলেন, ইয়েমেনের সেনা ও গণবাহিনীর মিসাইল ইউনিট সর্বমোট ৬৮টি অভিযান পরিচালনা করেছে; যার মধ্যে ৪৯টি ইয়েমেন অভ্যন্তরে এবং ১৯টি ইয়েমেনের বাইরে। আগ্রাসীদের সমাবেশ, বিভিন্ন কেন্দ্র, ঘাঁটি ও সেনা ছাউনি লক্ষ্য করে এ সকল অভিযান চালানো হয়।

ড্রোন ব্যবহার করে পরিচালিত অভিযানের বিষয়ে তিনি বলেন: ইউএভি ইউনিট ২৪৫টি অভিযান পরিচালনা করেছে যার মধ্যে ১৭০টি ইয়েমেনের অভ্যন্তরে এবং ৭৫টি ইয়েমেনের বাইরে চালানো হয়েছে।

ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর এ মুখপাত্র অভিযানে প্রায় ৩০০ সাঁজোয়া, সৈন্য ও কর্মীবাহী যান এবং চারটি অস্ত্র ও গোলাবারুদ গুদাম ধ্বংসের তথ্য দিয়ে বলেন:অপারেশন ‘ফাজরুল ইন্তিসারে’ আগ্রাসী বাহিনীর ৫৬৫০ ভাড়াটে সৈন্য নিহত, আহত বা বন্দী হয়েছে। এর মধ্যে নিহত হয়েছে ১৩০০ জন, ৪৩২০ জন আহত এবং ৩০ জন সৈন্য বন্দী হয়েছে।#176


সম্পর্কিত প্রবন্ধসমূহ

আপনার মন্তব্য প্রেরণ করুন

আপনার ই-মেইল প্রকাশিত হবে না। প্রয়োজনীয় ফিল্ডসমূহ * এর মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে

*