শিয়া মাযহাবের সত্যতার বিষয়ে সুদানের ওলামা পরিষদ প্রধানের ঐতিহাসিক ফতওয়া

  • News Code : 373513
  • Source : ABNA
সুদানের ওলামা পরিষদের প্রধান প্রফেসর মুহাম্মাদ ওসমান সালেহ তার এক ঐতিহাসিক ফতওয়াতে আহলে বাইত (আ.) এর মাযহাব সত্য হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে শিয়া ও সুন্নি মাযহাবের মাঝে ঐক্য বজায় রাখা ওয়াজিব বলে গুরুত্বারোপ করেছেন।

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা আবনার রিপোর্ট : মধ্যপ্রাচ্যে –বিশেষতঃ আফ্রিকা মহাদেশের উত্তরাঞ্চলীয় দেশসমূহে- ইসলাম জাগরণের জোয়ার শুরু হওয়ার পর ইসলাম ধর্মের চিরশত্রুদের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে মুসলিম উম্মাহ’র ঐক্যবদ্ধ হওয়ার প্রতি অধিক মনোযোগী হয়েছেন মুসলিম বিশ্বের কর্ণধাররা।

সুদানের ওলামা পরিষদের প্রধান প্রফেসর মুহাম্মাদ উসমান সালেহ সুদান এবং উত্তর আফ্রিকার একজন সনামধন্য ব্যক্তিত্ব। তিনি শিয়া মাযহাবের সত্য হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে ইসলামি মাযহাবসমূহের মাঝে ঐক্য রক্ষা করা অতীব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বলে আখ্যায়িত করে বলেছেন : ‘এ বিষয়টির উপর আমাদেরকে অবশ্যই বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে’। তিনি স্পর্শকাতর এমন মুহূর্তে ঐতিহাসিক এক ফতওয়া প্রদানের মাধ্যমে সকল মুসলিম উম্মাহকে জায়নবাদী ইসরাইল এবং ইসলাম ও মুসলমানদের চিরশত্রুদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ও পরস্পরের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়ার প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

গত ১৩ই ডিসেম্বর তিনি সুদানীয় দৈনিক ‘আখবারুল ইয়াওম’ পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে, শিয়া ও সুন্নি মাযহাবের মাঝে প্রায় ৯০% বিষয়ে মিল রয়েছে এ কথা উল্লেখ করে বলেন : মহান আল্লাহ পবিত্র কুরআনে সকল মুসলমানদের উদ্দেশ্যে কথা বলেছেন এবং তাদের মাঝে কোন পার্থক্য তিনি রাখেননি।

শেইখ মুহাম্মাদ উসমান তার এ সাক্ষাতকারে ইরান, তুরস্ক ও পাকিস্তানের সাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে শত্রুদের বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারী ও পরস্পর হতে পৃথক করার কুউদ্দেশ্যে যে সকল চক্রান্ত তারা অব্যাহত রেখেছে তা নস্যাত করার জন্য আরব জাতির নিকট আবেদন জানিয়েছেন। তিনি বলেন : একবার ভাবুন, যদি সুন্নি ও শিয়া মাযহাবের অনুসারীরা কুফরের পতাকাবাহীদের বিরুদ্ধে পরস্পরের সাথে ঐক্যবদ্ধ হয় তবে কি বৃহত শক্তির সৃষ্টি হবে।

জায়নবাদী ইসরাইলকে তিনি মুসলিম উম্মাহ’র প্রকৃত শত্রু উল্লেখ করে, যাতে মধ্যপ্রাচ্যে শত্রুদের শিয়া ভীতি ছড়ানোর ষড়যন্ত্রের পথরোধ করার লক্ষ্যে সচেষ্ট হওয়ার জন্য সকল জনগণ ও কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। এর পাশাপাশি মুসলমানদের প্রকৃত ও প্রথম শত্রু যেন মুসলিম উম্মাহর মাঝে ভেদাভেদ সৃষ্টি না করতে পারে সে বিষয়ে সতর্ক থাকার আহবান জানান।

জনাব উসমান সালেহ, শেষে শিয়া ও সুন্নি মাযহাবের মাঝে অধিকাংশ বিষয়ে মিল থাকার কথা উল্লেখ করে বলেন : শিয়া ও সুন্নি মাযহাবের মাঝে শতকরা ৯০ ভাগ বিষয়ে মিল রয়েছে, যদিও নগন্য কিছু বিষয়ে পার্থক্য থেকেই থাকে সেগুলো ইতিহাস ভিত্তিক।

শেইখ উসমানের এ ফতওয়া তখন ঘোষণা করা হল, যখন ওয়াহাবীরা আহলে বাইত (আ.) এর মাযহাবের বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচারের মাধ্যমে মুসলিম উম্মাহর ঐক্যে ফাঁটলের সৃষ্টি এবং বিভিন্ন দেশে শিয়াদের রক্ত ঝরানোর কারণ হচ্ছে।

মধ্যপ্রাচ্যে –বিশেষতঃ উত্তর আফ্রিকার দেশসমূহে- ইসলাম জাগরণের জোয়ার শুরু হওয়ার পর ইসলাম ও মুসলমানদের চিরশত্রু বিভিন্ত চক্রান্ত, বিভিন্ন বিষয়ে সংশয় সৃষ্টির মাধ্যমে মহানবী (স.) এর প্রকৃত ইসলাম প্রচারের পথরোধ করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এছাড়া তারা বিভিন্ন নীলনকশা ও ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে মুসলিম উম্মাহর জাগরণের বিরাট এ জোয়ারকে অন্যদিকে প্রবাহিত করা এবং এ সকল বিপ্লবকে নিজেদের স্বার্থসিদ্ধ করার অপচেষ্টায় লিপ্ত। এমন পরিবেশে মুসলিম বিশ্ব ও উত্তর আফ্রিকার দেশসমূহে ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব হিসেবে খ্যাত প্রফেসর মুহাম্মাদ উসমান সালেহ’র গুরুত্বপূর্ণ ও ঐতিহাসিক এ ফতওয়া, এক উদ্দেশ্যের দিকে ধাবিত হওয়ার জন্য মুসলিম উম্মাহ’র ঐক্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে বিবেচিত হতে পারে।#
پیام رهبر انقلاب به مسلمانان جهان به مناسبت حج 1441 / 2020
conference-abu-talib
We are All Zakzaky