‘আহলে বাইত বার্তা সংস্থা’

সূত্র : ABNA
বৃহস্পতিবার

৮ জুন ২০২৩

৪:০৯:০৯ PM
1371802

ইসলামিক সেন্টার অব ইংল্যান্ডের বিষয়ে লন্ডন সরকারের হস্তক্ষেপের নিন্দায় ইসলামি সংস্থাগুলো

বিভিন্ন ইসলামি সংস্থার প্রতিনিধিদের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়েছে: ইসলামিক সেন্টারের জন্য অস্থায়ী পরিচালক নিয়োগের সিদ্ধান্ত একটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সিদ্ধান্ত এবং ইসলামোফোবিয়ার স্বার্থের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ।

 

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা আবনা জানিয়েছে: একটি চিঠিতে, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ইসলামিক সংস্থার প্রতিনিধি, ইসলামিক সেন্টার অব ইংল্যান্ডের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে ব্রিটিশ ‘চ্যারিটি কমিশন’ এর হস্তক্ষেপের বিষয়ে তাদের তীব্র আপত্তি ও নিন্দা প্রকাশ করেছেন।

চিঠিতে, -যার একটি অনুলিপি ইসলামী মানবাধিকার কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে- ব্রিটিশ দাতব্য কমিশনের প্রধান ‘অরল্যান্ডো ফ্রেজার’কে উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে যে, ইসলামিক সেন্টারের জন্য অস্থায়ী পরিচালক নিয়োগের সিদ্ধান্ত একটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সিদ্ধান্ত এবং ইসলামোফোবিয়ার স্বার্থের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ।

চিঠিতে যোগ করা হয়েছে, "আপনি বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে নিরপেক্ষ অবস্থানের পরিবর্তে পক্ষপাতমূলক পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন এবং মুসলিম দাতব্য প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন"। ঐ চিঠিতে স্বাক্ষরকারীরা ধর্মীয় কেন্দ্রগুলির অভ্যন্তরীণ বিষয়ে ব্রিটিশ চ্যারিটি কমিশনের হস্তক্ষেপ থাকার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন যে, এই প্রতিষ্ঠানের ধর্মীয় সংগঠনগুলির কর্মসূচির মান সম্পর্কে মন্তব্য করার ক্ষমতা ব্রিটিশ চ্যারিটি কমিশনের নেই এবং এটি তাদের দায়িত্বও নয়। কোনো সরকারী সংস্থার এমন অধিকার নেই যে, নাগরিকরা তাদের উপাসনালগুলোতে কী বলতে পারবে বা কোন ধরনের বিশ্বাস রাখবে তা ঠিক করে দেবে।

উল্লেখিত চিঠিতে বলা হয়েছে যে, ইংল্যান্ডের ইসলামিক সেন্টারের জন্য একজন অমুসলিম পরিচালক নিয়োগ, যিনি মানুষের আধ্যাত্মিক ও ধর্মীয় চাহিদা সম্পর্কে অবগত নন, এটা প্রমাণ করে যে ব্রিটিশ দাতব্য কমিশন ইসলামী সম্প্রদায়ের আক্বীদা, বিশ্বাস এবং তাদের দাবি ও চাহিদাগুলো সম্পর্কে এখনো অজ্ঞ।

১০শে মে, ব্রিটিশ চ্যারিটি কমিশন ওয়েম্বল বন্ড ডিকিনসন আইন সংস্থার সদস্য এমা মোদিকে ইসলামিক সেন্টারের অন্তর্বর্তী পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেয়। জারি করা বিবৃতি অনুসারে, তার কর্তৃত্ব ইসলামিক সেন্টারের অন্যান্য যেকোন কর্তৃকপক্ষের চেয়ে ঊর্ধ্বে এবং তিনি এই সংস্থার সকল ব্যবস্থাপনা পর্যালোচনা করবেন।

মূলতঃ, ২০২১ সালে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের ইসলামিক বিপ্লবী গার্ড কর্পসের কুদস ফোর্সের প্রয়াত কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলেইমানির শাহাদাতের স্মরণে একটি স্মরণসভা আয়োজনের জন্য ব্রিটিশ দাতব্য কমিশন ইসলামিক সেন্টারের উপর এই সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে, ব্রিটিশ চ্যারিটি কমিশন, ইসলামিক সেন্টারের কার্যক্রমের উপর একটি তদন্ত ফাইল খোলার ঘোষণা দেয় এবং এর বিরুদ্ধে কতিপয় অভিযোগ দায়ের করে।

ব্রিটিশ চ্যারিটি কমিশনের প্রধান, ২০ মে প্রকাশিত একটি বিবৃতিতে দাবি করেছেন যে, জনসাধারণের চোখে "দাতব্য" সংস্থার অবস্থানকে ইতিবাচক করার জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে এবং অস্থায়ী পরিচালক এই সংস্থার সার্বিক উন্নয়নের জন্য সচেষ্ট হবেন।

একই সময়ে, উগ্রপন্থী মুনাফেক সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রাখা ইংল্যান্ডের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী "টম টুগেন্দ হাট" একটি ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ করে ইসলামিক সেন্টার সম্পর্কে ব্রিটিশ দাতব্য কমিশনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে ইসলামিক সেন্টারের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ ও মন্তব্য করেন।

এ প্রসঙ্গে, ইসলামী সংস্থাগুলোর প্রতিনিধিরা বলেছেন, পশ্চিমাদের বৈদেশিক নীতির স্বার্থের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ না হওয়ার কারণে একটি মুসলিম দাতব্য প্রতিষ্ঠানের সাথে এরূপ আচরণ করা অনুচিত। এই আচরণগুলি স্বভাবতই ব্রিটিশ দাতব্য প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মুসলমানদের মনে ক্ষোভ ও ঘৃণার সৃষ্টি করবে।#176S